Menu

এসএ গেমস এ “স্বর্ণজয়ী” রিতু মনিকে ফুলের শুভেচ্ছা দিলো সারিয়াকান্দিবাসী

পাভেল মিয়া, স্টাফ রিপোর্টার: বুধবার দুপুরে রিতু মনি সারিয়াকান্দিতে আগমন করলে সারিয়াকান্দি বাসী ফুলের শুভেচ্ছায় শিক্ত করলো স্বর্ণজয়ী জাতীয় মহিলা ক্রিকেট দলের অন্যতম খেলোয়ার সারিয়াকান্দির রিতু মনিকে।
বগুড়ার সারিয়াকান্দি পৌর এলাকার বাড়ইপাড়া গ্রামে তার জন্ম। ১২ বছর বয়সে বাবাকে হারান, ১৭ বছর বয়সে মাকে হারান। বাবা-মা হারা মেয়েটি ছোট থেকে ক্রিকেট খেলার উপর ঝোক ছিল। তাই ছোটবেলা থেকেই হাজারো স্বপ্নের মাঝে একটা স্বপ্ন বেচে নিয়েছিলেন স্বপ্ন ছিলে একজন ভালো ক্রিকেটার হওয়া। ছোট বেলা থেকেই ছেলেদের সক্সেগও খেলতেন। পিতা মোজ্জাম্মেল হক ব্যবসায়ী অতি সাধারণ একজন মানুষ ছিলেন। মাতাঃ গৃহিণী রাজিয়া বেগম। অতি সাধারণ পরিবারের রিতু মনির জন্ম হলেও দারিদ্রতা ও হাজার প্রতিকূলতার মাঝে তার স্বপ্নকে দমাতে পারেনি। নিজের যোগ্যতা দিয়ে জায়গা করে নিয়েছে জাতীয় মহিলা ক্রিকেট দলে। এক ভাই তিন বোনোর মধ্যে রিতু মনি সবার ছোট।সারিয়াকান্দি মডেল স্কুল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষা জীবন শুরু করেন। এর পর সারিয়াকান্দি বালিকা বিদ্যালয় থেকে মানবিক বিষয়ে এসএসসি পাস করেন। এর পর সারিয়াকান্দি ড্রিগ্রি কলেজ থেকে এইচএসসি ও ড্রিগ্রি পাস এবং বর্তমানে সারিয়াকান্দি ডিগ্রী কলেজেই মাস্টাস শেষ বষের ছাত্রী। ৭ম শ্রেনীতে পড়াশোনা করাকালীন সময় হতে অনুশীলন করতে থাকে সে। ২০১০ সালে রাজশাহী ডিভিশন, ২০১১ সালে ঢাকায় ২০১২ সালে জাতীয় মহিলা ক্রিকেট মহিলা দলে যোগদানের পর হতে বেশ কয়টি দেশে বিশেষ ম্যাচ খেলতে অংশ গ্রহণ করেছে। জাতীয় মহিলা টিমের খেলোয়ার হিসাবে রিতু মনি এসএ গেমস এ অংশ গ্রহণ করে স্বর্ণজয় করে বাংলাদেশের সুনাম উজ্জল করেছে। দেশের সাথে সাথে রিতু মনি বগুড়া জেলার সারিয়াকান্দি উপজেলার সুনাম অর্জন করেছে।
রিতু মনিকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানায় সারিয়াকান্দির রাজনৈতিক,সামাজিক, সাংস্কতিক, সাংবাদিক, বর্ণিক সমিতিসহ উপজেলা প্রশাসনের পক্ষে নির্বাহি অফিসার রাসেল মিয়া। বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য হিসেবে উজ্জ্বল নক্ষত্র রিতু মনি এগিয়ে যাক এই দোয়া ও প্রত্যাশা সারিয়াকান্দি বাসীর। মনি তাঁর গৌরবময় জীবন অতিবাহিত করুন, আমাদের বুকে ভালোবাসার সঞ্চার করুন তাঁর দৃপ্ত ক্রীড়াদক্ষতায়, আরো সুদীর্ঘকাল, সেই শুভকামনা।

No comments

Leave a Reply

five × five =

সর্বশেষ সংবাদ