Menu

কাহালুতে ইউএনও মাছুদুর রহমানের দু-বছরঃ তার কর্মদক্ষতায় সুফল পাচ্ছেন মানুষ

মুনসুর রহমান তানসেন কাহালু থেকেঃ পৃথিবীতে অনেক মানুষ আছেন, তাদের ভালো কর্মকান্ডের মধ্য দিয়ে নানা গুণে গুণান্বিত হয়েছেন। তেমনই একজন মানুষ বগুড়ার কাহালু উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাছুদুর রহমান। নীতিহীন কাজ থেকে মানুষকে বিরত রাখতে ও ইতিবাচক কাজে মানুষ উদ্বুদ্ধ করতে সর্বদা তিনি প্রাণপণ চেষ্টা করেছেন।

২০১৯ সালের ২১ মে অত্র উপজেলায় তিনি যোগদান করেছেন। তার দু-বছরের কর্মযজ্ঞে উপজেলাবাসী পেয়েছেন অনেক সুফল। কথায় আছে ইচ্ছে থাকলে উপায় একটা বের হবেই। তেমনি ন্যায় সঙ্গত কাজে ইউএনও মোঃ মাছুদুর রহমানের মধ্যে রয়েছে সেই ইচ্ছে শক্তি। তার ইচ্ছে শক্তি দিয়েই উপজেলাবাসীর মঙ্গলের জন্য অনেক ভালো ভালো কাজ করেছেন। যত বড়ই প্রভাবশালী হোক-না কেন, গত দু-বছরে কেউ কোন অন্যায় কাজের আবদার নিয়ে তার সামনে দাঁড়াতে পারেনি। আর যারা ভালো কাজের জন্য তার কাছে গেছেন, আগে তাদেরকে সার্বিক সহযোগীতা করেছেন।

উপজেলা প্রশাসনের কাজ সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন করবার জন্য তিনি কখনো বিনয়ী আবার কখনো কঠোর হয়েছেন। মোট কথা ভালো কাজে তার কাছে মুল্য আছে, আর অসঙ্গতিপূর্ণ কাজে তার কাছে কোনই মুল্য নেই। সরকারি সিদ্ধান্ত মাঠ পর্যায়ে বাস্তবায়নে সব সময় তিনি থাকতেন সচেষ্ট। তিনি যখন প্রথম এখানে যোগদান করেন, তখন তিনি উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা/কর্মচারীদের নির্দেশনা দেন, সবাই যাতে সরকারি নিয়মনীতি মেনে নিদ্ধারিত সময়ে অফিসে হাজির হয়ে, নিজ নিজ দপ্তরে সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করেন। সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে কাজের জন্য এসে, কোন মানুষ যাতে হয়রানী ও ভোগান্তির শিকার না হন। সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা/কর্মচারী যাতে কোন মানুষের সাথে প্রভুসূলভ আচরণ, অনিয়ম ও দুর্নীতি না করেন তার জন্যেও তিনি সবাইকে সতর্ক করে দেন।

নিজের দপ্তর থেকে শুরু করে উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে নিয়মনীতির তাগাদা দিয়ে, মাঠ পর্যায়ে বিভিন্ন সময়ে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে, বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ যাতে নিয়মনীতির ছকে থাকেন, তার জন্য তিনি সব-সময় আন্তরিকভাবে চেষ্টা করছেন। নানা প্রতিবন্ধকতার কারণে অতীতে অত্র উপজেলার বিভিন্ন স্থানে প্রভাবশালীদের দখলে থাকা সরকারি খাস জায়গা ও জলমহাল কেউ দখল মুক্ত করতে পারেননি।

ইউএনও মোঃ মাছুদুর রহমান গত দু-বছরে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টিকারীদের দূঢ়তার সাথে দমন করে বেশ কিছু সরকারি জায়গা ও জলমহাল দখল মুক্ত করেছেন। দখল মুক্ত জায়গাগুলোতেই প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ি অসহায় গৃহহীন মানুষের স্বপ্নের আবাসনের ব্যবস্থা তিনি সুষ্ঠভাবে করে দিয়েছেন। অতীতে প্রভাবশালীদের প্রতিবন্ধকতা ও কতিপয় ব্যক্তিরা ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের নাম ভাঙ্গার কারণে এখানে বেশ কয়েকটি সরকারি জলমহাল কেউ ইজারাই নিতোনা। আবার কোন কোন হাট-বাজারও ইজারা হতোনা।

বর্তমান ইউএনও মোঃ মাছুদুর রহমান এখানে আসার পর শতভাগ হাট-বাজার ইজারা প্রদান ও অতীতের চেয়ে অনেক বেশী সরকারি জলমহাল ইজারা দেওয়া হয়েছে। যারফলে এখানে ভুমি কর থেকে শুরু করে সরকারের রাজস্ব আয় বেড়েছে প্রায় দ্বিগুন। উপজেলার বিভিন্ন স্থানে পানি নিস্কাশ্বনের সরকারি নয়নজুলি যে যার মত করে দখলে রেখে অবৈধভাবে অপরিকল্পিত স্থাপনা নির্মাণ করে রেখেছিলো। যারফলে আমন ধান চাষাবাদে কৃষক ও বর্ষা মৌসুমে জনসাধাণকে নানা সমস্যায় পড়তে হতো। বিষয়টি ইউএনও মোঃ মাছুদুর রহমানের নজরে আসলে, বিভিন্ন স্থানে নয়নজুলির অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে, তা খননের মাধ্যমে অনেকটা পানি নিস্কাশ্বনের পথ পরিস্কার করা হয়েছে।

তিনি সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার ফলে উপজেলার কাইট মাঠ থেকে পাঁচপীরের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া খাড়িয়া খননের কাজ চলমান রয়েছে। বিভিন্ন স্থানীয় নির্বাচনে তার নিরপেক্ষতায় ভোটার, বিজয়ী ও পরাজিত প্রার্থীরা কেউ তার সমালোচনা করতে পারেনি। দেশে করোনার সংক্রামণ শুরু হওয়ার পর থেকে, উপজেলার মানুষকে করোনা মুক্ত রাখার জন্য দিনরাত সমান করে সবাইকে সচেতন করার চেষ্টা করেছেন। করোনার ভয়াল থাবা থেকে তিনি মানুষকে বাঁচাতে সব ধরণের চেষ্টা এখনো করে যাচ্ছেন।

করোনা যুদ্ধে, সামনের সারির এই যোদ্ধা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানুষকে রক্ষা করতে গিয়ে, করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে শিশুপুত্রসহ তিনি নিজেও করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। করোনাকালীন সময়ে কর্মহীন মানুষের জন্য সরকারি সহায়তা প্রদানে দেশের বিভিন্ন স্থানে অনিয়মের খবর পাওয়া গেলেও কাহালু উপজেলায় এই ধরণের সহায়তা প্রদানে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়নি।

করোনার মুহুর্তে অভাবে পড়া যেসকল মানুষ মান-সম্মানের ভয়ে কারো কাছে সাহায্যের হাত বাড়ায়নি, গোপনে সেই সকল মানুষকে তিনি আন্তরিকভাবে সহায়তা দিয়েছেন। করোনায় কোন মানুষের মৃত্যু হলে সেই মানুষের দাফন-সৎকারে নিকট আতœীয়-স্বজন এগিয়ে না এলেও ইউএনও মোঃ মাছুদুর রহমান নিজেই করোনায় মৃত ব্যক্তির দাফন ও সৎকারে অংশ নিয়েছেন। নানা গুণে গুণান্বিত ইউএনও মোঃ মাছুদুর রহমানের সততা, ন্যায় ও নিষ্ঠার কারণে সর্ব মহলে প্রসংশিত।

ইউএনও মোঃ মাছুদুর রহমান জানান, সরকারি কাজে অত্র উপজেলার বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষের আমি ভালো সহযোগীতা পেয়েছি। আমি এখানে যতদিন থাকবো কাহালু উপজেলাবাসীর সার্বিক উন্নয়ন ও ভালো কাজে শরিক হবো।

No comments

Leave a Reply

5 × one =

সর্বশেষ সংবাদ