Menu

কাহালু উপজেলায় হানাদার মুক্ত দিবস ১৩ ডিসেম্বর

সোনাতলা সংবাদ ডটকম (মুনসুর রহমান তানসেন, কাহালু বগুড়া): নয় মাস শক্রুসেনা পাক হানাদার বাহিনীর সাথে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের মধ্য কাহালুর বীরমুক্তিযোদ্ধারা ১৯৭১ সালের ১৩ ডিসেম্বর অত্র উপজেলাকে হানাদার মুক্ত করেন।

১৯৭১ সালের এই দিনে মুজিব বাহিনীর কমান্ডার অধ্যক্ষ হোসেন আলীর নেতৃত্বে বীরমুক্তিযোদ্ধারা পাক হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে প্রবল প্রতিরোধ গড়ে তোলেন। যারফলে ১৯৭১ সালের ১৩ ডিসেম্বর সকাল ১০টায় মেজর জাকিরসহ পাক হানাদার বাহিনীর সদস্যরা তৎকালিন মুজিব বাহিনীর কমান্ডার অধ্যক্ষ হোসেন আলীর কাছে অস্ত্রসহ আতœসমর্পনে বাধ্য হয়।

আজকের এই দিনে পাক হানাদার বাহিনীর আতœসমর্পনের মধ্য দিয়ে কাহালু হানাদার মুক্ত হয়। হানাদার মুক্ত দিবস পালন উপলক্ষে আজ সকাল ১০টায় কাহালু উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে র‌্যালী বের করা হবে বলে জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাছুদুর রহমান।

উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার নজিবর রহমানসহ স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধারা জানিয়েছেন মহান মুক্তিযুদ্ধে পাক হানাদার বাহিনী ও এদেশীয় তাদের দোসররা প্রায় ৫২৯ জন নিরীহ বাঙ্গালীকে হত্যা করে। এছাড়াও লুটপাট-অগ্নিসংযোগ কর হয়েছে প্রায় ৫৫৩ বাড়িতে।

অসংখ ধর্ষনের ঘটনা ঘটলেও লোক লজ্জার ভয়ে সেই সম্ভ্রম হারা মা-বোনদের নাম অজানা রয়ে গেছে। মুক্তিযুদ্ধের সময় খুন, ধর্ষন, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটলেও এখানকার কোনো যুদ্ধাপরাধীর বিরুদ্ধে এখনো কোনো মামলা হয়নি। স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধাদের দাবী সারাদেশের মত এখানে যুদ্ধাপরাধীদের চিহিৃত করে বিচারের আওতায় আনা হোক।

No comments

Leave a Reply

15 + twenty =

সর্বশেষ সংবাদ