Menu

গাবতলীতে এসিড নিক্ষেপের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় অভিযুক্তরা এখনও ঘুরে বেড়াচ্ছে

সোনাতলা সংবাদ ডটকম (বগুড়া প্রতিনিধি): বগুড়ার গাবতলীতে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এসিড নিক্ষেপের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার অভিযুক্ত একজন গ্রেফতার হলেও অন্যান্যরা এখনও প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে বলে অভিযোগ তুলেছেন ভুক্তভোগীরা। অজ্ঞাত কারণে পুলিশ তাদের গ্রেফতার করছে না। গ্রেফতার না করায় অভিযুক্তরা মামলার বাদী ও পরিবারের সদস্যদের হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।
মামলাসূত্রে জানা গেছে, উপজেলার নশিপুর ইউনিয়নের বাগবাড়ী পশ্চিমপাড়া গ্রামের মৃত আবুল হোসেন ছেলে আলমগীর ওরফে আলমের শ্বশুর আব্দুর রশিদের সঙ্গে একই গ্রামের আলমগীর (৪৫), আনিছার (৩৫), আশরাফ আলী (৩৫), জরিনা বেগম (৩৮) এবং শামসুল মোল্লার জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এই বিরোধের জের ধরে গত মাসের ১২ জুন আব্দুর রশিদের ছোট মেয়ে ইসমেতা (২৫)কে মারপিট করে গুরুত্বর জখম করে প্রতিপক্ষরা। এরপর ২৩ জুন আলমের স্ত্রী রাশিদা বেগম (৩৮) বাবার বাড়ীতে যাবার জন্য স্বামীর বাড়ী থেকে বের হয়। পথিমধ্যে একই গ্রামের জনৈক আলতাফ আলীর বাড়ীর সামনে পাকা রাস্তার মোড়ে পৌছামাত্রই মামলায় ৩নং অভিযুক্ত মৃত জহির প্রাং এর ছেলে আশরাফ আলী (৩৫) রাশিদার উপর পিছন থেকে এসিড ছুড়ে মারে। এতে রাশিদা বেগমের পিঠ ঝলসে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে তাকে ভর্তি করে। এ ঘটনায় ২৪জুন ৫জনকে অভিযুক্ত করে রাশিদার স্বামী আলমগীর হোসেন আলম বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করে। মামলায় ৩নং অভিযুক্ত আশরাফ আলীকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে মামলার আইও এসআই মুসা মিয়া। অন্যান্য অভিযুক্তরা এখনও প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে। অজ্ঞাত কারণে পুলিশ তাদের গ্রেফতার করছে না। এমতবস্থায় অভিযুক্তরা মামলার বাদী ও পরিবারের সদস্যদের হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ব্যাপারে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বাগবাড়ী ফাঁড়ি ইনচার্জ মুসা মিয়ার সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া গেছে।

No comments

Leave a Reply

10 + 10 =

সর্বশেষ সংবাদ