Menu

গাবতলীতে চুরি হওয়া ৫টিগরু ১৫দিনেও উদ্ধার হয়নি

সোনাতলা সংবাদ ডটকম (বগুড়া প্রতিনিধি): বগুড়ার গাবতলীতে গোয়াল ঘর থেকে ২টি বড় গাভীসহ ৫টি বোকনা বাছুর (গরু) চুরি হওয়ার ১৫দিন অতিবাহিত হলেও গরু গুলো উদ্ধার এবং ঘটনার সাথে জড়িত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। এ ঘটনায় এলাকাবাসির মধ্য ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। গরু খোয়া যাওয়ায় প্রায় ২লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধন হয়েছে বলে গরুর মালিক জানিয়েছেন। এলাকাবাসি বলছেন, গরু গুলো উদ্ধার এবং ঘটনার সাথে জড়িতরা গ্রেফতার না হলে এ ধরনের চুরির ঘটনা বৃদ্ধি পাবে। থানা পুলিশ ঘটনাটি খতিয়ে দেখে যথাযথভাবে ব্যব¯া’ নেয়ার জন্য জোর দাবী করেছেন সচেতন মহল। প্রকাশ, গত ২১মার্চ দিবাগত রাতে উপজেলার কাগইল ইউনিয়নের তেলকুপি গ্রামের জাহাঙ্গীর আলমের বাড়ির গোয়াল ঘর থেকে গরু গুলো চুরির ঘটনা ঘটে। এর প্রেক্ষিতে গরুর মালিক জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে রেজওয়ান আলম আপেল বাদী হয়ে অজ্ঞাত আসামীদের বিরুদ্ধে পরের দিন থানায় একটি লিখিতভাবে অভিযোগ দায়ের করেন। থানার ওসি সেলিম হোসেন গরু গুলো উদ্ধারসহ সাবির্ক বিষয় খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নিতে থানার এসআই কান্তি মোদক ও এএসআই হাবিবকে দায়িত্ব দেন। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য, দীর্ঘ ১৫দিনেও তাঁরা কোন ব্যবস্থা নিতে পারেনি। এ বিষয়ে থানার এসআই কান্তি মোদক এর সাথে কথা বললে তিনি জানান, চোরাই গরু গুলো উদ্ধার এবং জড়িতদের গ্রেফতার করতে আমাদের তৎপরতা অব্যহত রয়েছে। তিনি আরো জানান, কাগইল বাজারের কসাই মাইনুলকে আমরা কিছুটা সন্দেহ করে খোঁজ-খবর রাখছি। কারন তার বিরুদ্ধে চোরাই গরু জবাই কওে মাংশ বিক্রি করার ইতিপূর্বে অভিযোগ ছিল। এলাকার অনেকে জানিয়েছেন, মাইনুল কসাই বিভিন্ন সময় চোরাই গরু কম দামে ক্রয় করে মাংস বিক্রি করে থাকে। এ ধরনের অভিযোগের কারনে পুলিশের ভয়ে কসাই মাইনুল ইতিপূর্বে এলাকা থেকে পালিয়ে ছিল বলে এলাকাবাসি জানান।

No comments

Leave a Reply

one + 12 =

সর্বশেষ সংবাদ