Menu

গাবতলীতে ধর্ষণ মামলার অভিযুক্তদের হুমকির মুখে পালিয়ে বেড়াচ্ছে বাদী

সোনাতলা সংবাদ ডটকম (বগুড়া প্রতিনিধি): বগুড়ার গাবতলীতে ধর্ষণ মামলার অভিযুক্তদের হুমকির মুখে ঘর-সংসার ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে মামলার বাদী।
জানা গেছে, গাবতলী উপজেলার নাড়–য়ামালা ইউনিয়নের মধ্যকাতুলী দক্ষিণপাড়া গ্রামের জনৈক এক ব্যক্তির মেয়ে সুমাইয়া বেগম (ছদ্মনাম) স্থানীয় একটি হাইস্কুলে অষ্টম শ্রেণিতে লেখাপড়া করতো। একই গ্রামের আবুল প্রামানিকের ছেলে আব্দুর রহিম আলিফের লোলুপ দৃষ্টি পড়ে যায় ওই মেয়েটির ওপর। এরপর আলিফ সুমাইয়াকে নিজের নিয়ন্ত্রণে নিতে প্রথমে প্রেমের ফাঁদ ফেলে। কিন্তু প্রেমে সাড়া না পাওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে উঠে আলিফ। গতবছরের ২৫শে ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৭টায় সুমাইয়া বাড়ীর পার্শ্বের মধ্যকাতুলী ফোরকানিয়া নাইট মাদ্রাসায় কোরআন শরীফ পড়া শেষে বাড়ী ফিরছিলো। কিন্তু আগে থেকে ওঁত পেতে থাকা আলিফ ৫জনের সহায়তায় সুমাইয়াকে জোরপূর্বক মুখ চেপে ধরে নিজের বসতবাড়ীতে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় সুমাইয়ার বাবা বাদী হয়ে আলিফকে প্রধান করে মোট ৬জনকে অভিযুক্ত করে গত ২৭ডিসেম্বর গাবতলী মডেল থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা থানার এসআই সালাউদ্দিন ওই রাঁতেই আলিফকে গ্রেফতার করে পরেরদিন জেলহাজতে প্রেরণ করে। এদিকে মামলার অন্যান্য অভিযুক্ত ফেরদৌস (৩৩), বাবলু (৫০), জিয়ারু(৪০), নাননু(৩৫) ও হুমায়ন (২৮) মহামান্য হাইকোর্ট থেকে জামিনে আসার পর থেকেই প্রভাবশালী এক জনপ্রতিনিধির ছত্রছায়ায় থেকে মামলার বাদীকে বিভিন্ন ভাবে প্রাণ নাশের হুমকি-ধামকি দিচ্ছে। এ ঘটনায় সুমাইয়ার বাবা গত ১৫ ফেব্রুয়ারীতে ৮জনকে অভিযুক্ত করে জেলা বগুড়ার বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গাবতলী থানা আদালতে একটি মামলার দায়ের করেন।

No comments

Leave a Reply

three + eleven =

সর্বশেষ সংবাদ