Menu

গাবতলীতে মিষ্টি ব্যবসায়ীকে ছুরিকাঘাত, থানায় মামলাঃ গ্রেফতার-১

সোনাতলা সংবাদ ডটকম (সাব্বির হাসান, গাবতলী): বগুড়ার গাবতলীতে মিষ্টি ব্যবসায়ী আমিনুল ইসলাম ভেটু (৪৫)কে ধারালো চাকু দিয়ে গুরুতর জখম করেছে প্রতিপক্ষ সন্ত্রাসীরা।

 

এ সময় ভেটুর ভাতিজা মিল্লাদ হোসেন (৩১) ও ভাগ্নী রিমা খাতুনকেও (২০) চাকু দিয়ে আঘাত করে রক্তাক্ত জখম করা হয়। গত বৃহস্পতিবার রাত পৌণে ১১টায় গাবতলী মডেল থানার সন্নিকটে পৌর সদরের পশ্চিমপাড়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আহত ভেটুর স্ত্রী থানায় মামলা দায়ের করলে পুলিশ অভিযুক্ত একজনকে গ্রেফতার করেছে।

 

মামলাসূত্রে জানা গেছে, গাবতলী পৌর সদরের পশ্চিমপাড়া গ্রামের আজিমুদ্দিন মোল্লার ছেলে মিষ্টি ব্যবসায়ী আমিনুল ইসলাম ভেটু প্রতিদিনের ন্যায় গত বৃহস্পতিরাত সাড়ে ১০টায় বাড়ীতে ফিরে ভাত খাচ্ছিল। এমন সময় আমিনুল ইসলাম ভেটুর বসতবাড়ীর সামনের রাস্তায় পানি ফেলাকে কেন্দ্র করে একই গ্রামের মৃত সামসুল আকন্দের ছেলে শফিক আকন্দের (৫২) বিরোধ বেধে যায়।

 

এরপর শফিক আকন্দের হুকুমে তাঁর ছোটভাই রফিক আকন্দ (৪৭), ছেলে রাজন আকন্দ (২২) ও স্ত্রী নাজি খাতুন (৪২) ভেটুর বাড়ীর গেটের সামনে এসে ভেটুকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। এ সময় ভেটু গালিগালাজ করতে নিষেধ করলে ওই অভিযুক্তরা বাড়ীতে ঢুকে শফিকের নির্দেশে রফিক ও রাজন ধারালো চাকু দিয়ে আমিনুল ইসলাম ভেটুর বাম গালে আঘাত করলে রক্তাক্ত কাটা জখম হয়।

 

ভেটুর আর্তচিৎকারে তাঁর ভাতিজা মিল্লাদ ও ভাগ্নী রিমা রক্ষা করতে এগিয়ে এলে তাদেরকেও ছুড়িকাঘাত করা হয়। গুরুতর আহত ভেটু ও মিল্লাদকে প্রথমে গাবতলী হাসপাতালে পরে অবস্থার অবনতি হলে তাদেরকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। তবে রিমাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।

 

এ ঘটনায় ভেটুর স্ত্রী হাজেরা বেগম (৪০) বাদী হয়ে গত শুক্রবার রাতে রফিককে প্রধান করে শফিক, রাজন ও নাজিকে অভিযুক্ত করে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে।

 

এ প্রসঙ্গে গাবতলী মডেল থানার ওসি সাবের রেজা আহমদ স্থানীয় সাংবাদিকদের বলেন, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। মামলার ২নং অভিযুক্ত শফিকুল ইসলাম শফিককে গতকাল বিকেলে গ্রেফতার করা হয়েছে। অন্যান্য অভিযুক্তদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

No comments

Leave a Reply

two + 18 =

সর্বশেষ সংবাদ