Menu

গাবতলীতে শিশুপুত্র হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবীতে এলাকাবাসির মানববন্ধন

মুহাম্মাদ আবু মুসাঃ বগুড়ার গাবতলীতে হানজালাল নামের ৬বছরের শিশুপুত্রকে অপহরণ করে ৫লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবী করে না পাওয়ায় দীর্ঘ ৩৯দিন পর শিশুটির লাশ ফেরত দেয় অপহরণকারীরা। শিশুপুত্র হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবীতে গতকাল রোববার এলাকার শত শত নারী-পুরুষ বিক্ষোভ মিছিল ও মানব বন্ধন কর্মসূচী পালন করেছেন। উপজেলার রামেশ^রপুর ইউনিয়নের নিশুপাড়া (বটতলা) এলাকায় এই কর্মসূচী পালন করা হয়। থানা পুলিশ খবর পেয়ে এ ধরনের কর্মসূচী পালন করতে নিষেধ করলে এলাকাবাসির মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। ফলে চাপা ক্ষোভ উত্তেজনা দেখা দেয়। যে কারনে এলাকার শত শত নারী-পুরুষ, এমনকি শিশুরাও রাস্তায় নেমে আসে। পরে পুলিশের উপস্থিতিতে শান্তিপূর্নভাবে এলাকাবাসি বিক্ষোভ মিছিল ও মাবনবন্ধন কর্মসূচী পালন করেন। এই কর্মসূচীতে শিশুপুত্র হানজালাল হত্যা হওয়ার বিষয়ে পুলিশের দায়িত্ব অবহেলা গাফলিয়াতি রয়েছে বলে নিহত শিশু’র বাবা ও মাসহ এলাকাবাসি অভিযোগ করেছেন। তারাঁ শিশু হানজালাল’র হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে ফাঁসির দাবী জানিয়েছেন। এই কর্মসূচীতে উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল গফুর, স্থানীয় ইউপি মেম্বার মানিক মিয়া, সাবেক মেম্বার তবিবর রহমান, এলাকার ডাঃ সিরাজুল ইসলাম, সাইফুল ইসলাম, পিন্টু মন্ডল, আবু বক্কর খান, শাহজাহান আলী খান, জয়দালী, ছালামত প্রমানিক, আঃ সামাদ, গিনি বেগম, বদিসহ এলাকার শত শত নারী-পুরুষ। এ বিষয়ে ঘটনাস্থলে থাকা থানার ওসি (তদন্ত) আনোয়ার হোসেনের সাথে কথা বলতে চাওয়া হলে তিনি কোন কথা বলতে রাজি হননি। গত ২১জানুয়ারী বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত আনুমানিক সাড়ে ৮টায় রামেশ^রপুর ইউনিয়নের নিশুপাড়া (বটতলা) এলাকায় তাদের বাড়ির পাশের্^ একটি পুকুরে হাত পা বাধা বস্তাবন্দি অবস্থায় শিশুটির লাশ ফেলে রেখে অভিভাবকের কাছে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে জানিয়ে দেয় অপহরণকারীরা। এর পর শিশুর পরিবার থানা পুলিশসহ বিভিন্ন লোকজনকে জানালে ওই পুকুরে গিয়ে লাশটি দেখা যায়। পরে রাত আনুমানিক সাড়ে ৯টায় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। শুক্রবার লাশের ময়না তদন্ত শেষে দাফন সম্পান্ন করা হয়। শিশু হানজালাল’র বাবা মালয়েশিয়া থাকার কারনে মোবাইল ফোনে তাদের নিকট প্রথমে ২লাখ টাকা কর্জ চায় অপহরণকারী। এ বিষয়ে কোন কর্নপাত করা না হলে গত বছরের ১৩ডিসেম্বর বিকেলে শিশু হানজালাল বাড়ির পাশের্^ খেলতে গেলে নিখোঁজ হয়ে যায়। তার পর আত্নীয় স্বজনসহ বিভিন্নস্থানে খোঁজাখুজি করে না পাওয়ায় ওই দিনগত রাতেই গাবতলী মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরী (জিডি) করেন। কিন্তু এর পর থেকে অপহরণকারীরা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ৫লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবী করে। বিষয়টি আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে জানালেও কোন ফল হয়নি বলে শিশু হানজালাল’র মা তাসলিমা বেগম ও বাবা পিন্টু মিয়া জানান।

No comments

Leave a Reply

ten − three =

সর্বশেষ সংবাদ