Menu

গাবতলীতে ৩৯মামলার আসামী আওয়ামী লীগ নেতা হামিদ চেয়ারম্যান এখন পঙ্গু

মুহাম্মাদ আবু মুসা, গাবতলী প্রতিনিধিঃ গাবতলীর দুর্গাহাটা ইউনিয়ন পরিষদের ২বার চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্দুল হামিদ বিগত সরকারের সময় প্রতি হিংসার শিকার হয়ে ধর্ষণ ও বিস্ফোরকসহ ৩৯টি মামলার আসামী হয়েছেন। তিনি এখন পঙ্গু হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন। মামলার গ্রেফতারী পরোয়ানা জারীমূলে পঙ্গু অবস্থায় বাড়িতে থেকে পুলিশ তাঁকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠালে দীর্ঘ ৯মাস কারা ভোগ করার পর উচ্চ আদালতের মাধ্যমে জামিন পেয়েছেন।

তিনি (হামিদ) মামলা গুলো পরিচালনা এবং চিকিৎসার ব্যয় বহন করে তাঁর সম্পত্তি শেষ করে এখন পথে বসেছেন। হামিদ চেয়ারম্যান বহু মানুষকে রিলিফ বল্টন, সাহায্য-সহযোগিতা করলেও এখন তাঁর নামে বয়স্ক ভাতার কার্ড করতে তাঁর স্ত্রী বর্তমান চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল মতিন মিঠু’র নিকটে কয়েকবার গেলেও কোন ফল হয়নি।

এ ছাড়া কোন আওয়ামী লীগ নেতা তাঁকে দেখতে যাননি এবং সহযোগিতার হাতও বাড়িয়ে দেননি বলে ওই পরিবার থেকে আক্ষেপ ও অভিযোগ করে বলেছেন। উপজেলার দুর্গাহাটা ইউনিয়নের বাইগুনি ভুলিগাড়ী পাড়া গ্রামের মৃত মানিক উদ্দিন প্রামানিক এবং ওহেদা বেওয়ার ছেলে আঃ হামিদ চেয়ারম্যান। তিনি (হামিদ) ১৯৪৯সালের ৬সেপ্টেম্বর ওই গ্রামে জন্ম গ্রহন করেন। তিনি গাইবান্দা থেকে ১৯৭০সালে কৃষি ডিপ্লোমা করে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা হিসেবে সরকারী চাকুরীও করেছেন। ছাত্র জীবনে ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথেও জড়িত ছিলেন। তাঁর সরকারী চাকুরী হলেও তিনি ছেড়ে দিয়ে সক্রিয়ভাবে রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন। পরবর্তীতে স্থানীয় দুর্গাহাটা ইউনিয়ন পরিষদের ২বার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। বিগত সরকারের সময় প্রতি হিংসার শিকার হয়ে ধর্ষণ ও বিস্ফোরকসহ ৩৯টি মামলার আসামী হন হামিদ চেয়ারম্যান। এর মধ্যে শুধু নারী ও শিশু মামলায় যাবজীবন সাজা ও ১০হাজার টাকা জরিমানা হয়। ইতিমধ্যে তিনি ব্রেন ষ্টোক করে পঙ্গু হয়ে যান। আর এই মামলার সাজা হওয়ায় গ্রেফতারী পরোয়ানা জারীমূলে পঙ্গু অবস্থায় বাড়িতে থেকে পুলিশ তাঁকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠালে দীর্ঘ ৯মাস কারা ভোগ করার পর উচ্চ আদালতের মাধ্যমে জামিন পেয়েছেন। তিনি এককভাবে চলা ফেরাও করতে পারেন না। আর্থিক অবস্থাও মোটেই ভাল না। ফলে মানবেতর জীবন যাপন করছেন ২বারের ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হামিদ। যে কারনে তিনি এবং তাঁর পরিবার প্রধানমন্ত্রীর নিকট সহযোগিতার আবেদন করেছেন।

No comments

Leave a Reply

eighteen − thirteen =

সর্বশেষ সংবাদ