Menu

গাবতলীর জামিরবাড়ীয়া হাটে হঠাৎ মাটি ফুলে ওঠায় উৎসুক জনতার ভীড়ঃ মাজার ভেবে টাকা ফেলছে জনগণ

সোনাতলা সংবাদ ডটকম (আমিনুর ইসলাম, গাবতলী বগুড়া): বগুড়ার গাবতলীতে জামির বাড়ীয়া বাজারের জায়গা হঠাৎ করে উঁচু হয়ে (ফুলে) ওঠায় এলাকার উৎসুক মানুষের মধ্য ব্যাপক চাঞ্চল্য’র সৃষ্টি হয়েছে। উঁচু হয়ে (ফুলে) ওঠা স্থানটি দেখতে প্রতিদিন শতশত নারী পুরুষ ভীড় জমাচ্ছে। পীর আউলিয়ার কবরস্থান ও মাজার ভেবে অনেকে টাকা পয়শা ছুরে ফেলছে। স্বরজমিনে গিয়ে জানাগেছে, গাবতলী উপজেলা সোনারায় ইউনিয়নের জামির বাড়ীয়া বাজারের মধ্য হঠাৎ করে গত ২৮ মার্চ সোমবার রাত অনুমান ৮ টায় বাজারের মধ্য ১০ ফিট পরিমান জায়গা হঠাৎ করে উঁচু হয়ে (ফুলে) ওঠা। বাজারে কেটা বেচা করতে আসা হাটুরেরা এদৃশ্য দেখে ভীড় জমায়। পরদিন লোকমুখে এলাকায় সংবাদটি ছড়িয়ে পড়লে শত শত নারী পুরুষ জাায়গাটি দেখার জন্য ভীড় জমায়। হাটের ইজারাদার ও এলাকার লোকজন উঁচু হয়ে (ফুলে) ওঠা জায়গাটির উপর লাল গামছা ও বাঁশদ্বারা ঘিরে রেখেছে। আগত দর্শকরা পীর বা আউলিয়ার কবরস্থান বা মাজার ভেবে সেখানে টাকা পয়শা ফেলছে। মোমবাতী আগরবাতী জ্বালিয়ে দিচ্ছে। হাটের ইজারাদার ও নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যাক্তি জানান এই জামির বাড়ীয়া বাজারে আমরা বহুদিন ধরে হাট বাজার করে আসছি। হঠাৎ করে উঁচু হয়ে (ফুলে) ওঠা স্থান দিয়ে বর্ষার সময় পানি গড়ে যেত। এখন সেখানে উঁচু হয়ে (ফুলে) উঠেছে। আমাদের ধারনা এখানে কোন পীর বা আউলিয়ার কবরস্থান বা মাজার রয়েছে। সংবাদপেয়ে গাবতলী মডেল থানার এসআই কান্তি কুমার মোদক ঘটনার স্থান পরিদর্শন করেছে। সে জনগনকে হঠাৎ করে উঁচু হয়ে (ফুলে) ওঠা হাটটি যেহেতু সরকারী কোন প্রকার খোড়াঁ খুড়ির প্রয়োজন নেই। হঠাৎ করে উঁচু হয়ে (ফুলে) ওঠা স্থানটি দেখতে প্রতিদিন শতশত নারী পুরুষ বাজারে ভীড় জমাচ্ছে।
কাহালুতে স্ত্রীকে হত্যা মামলায় স্বামী গ্রেফতার
কাহালু (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ কাহালু উপজেলার মুরইল বড় মসজিদ পাড়া এলাকায় গৃহবধু মনিরা আকতার (৩০) এর রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন মনিরার পিতা বেলাল হোসেন। এঘটনায় পুলিশ, আটক মনিরার স্বামী জয়নাল আবেদীন (৩৫) কে গ্রেফতার দেখিয়ে গতকাল শুক্রবার আদালতে পাঠিয়েছে।
জয়নাল মুরইল বড় মসজিদ পাড়ার আঃ হান্নানের পুত্র। জানা গেছে জয়নাল ও মনিরা ৩ সন্তানের জনক-জননী। এই রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় মনিরার নিকট আতœীয় স্বজন বলছেন তাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। জয়নালের আতœীয় স্বজন বলছেন মনিরা সবার অজান্তে আতœহত্যা করেছে।
কাহালু থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ শওকত কবির জানান, এই মৃত্যুর ঘটনায় সন্দেহ থাকায় হত্যা মামলা নেওয়া হয়েছে। ময়না তদন্তে আসল রহস্য বেড়িয়ে আসবে মনিরা আতœহত্যা করেছে না তাকে হত্যা করা হয়েছে।
উল্লেখ্য যে, মনিরার রহস্যজনক মৃত্যু নিয়ে পরস্পর বিরোধী মন্তব্য পাওয়ায় গত বৃহস্পতিবার পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়। এঘটনায় পুলিশ প্রথমে মনিরার স্বামী জয়নাল ও দেবর আরিফুর রহমানকে আটক করে। থানায় হত্যা মামলা হওয়ার পর আরিফুরকে ছেড়ে দিয়ে জয়নালকে গ্রেফতার দেখানো হয়।

No comments

Leave a Reply

one + ten =

সর্বশেষ সংবাদ