Menu

গাবতলীর সােনারায়-ডাকুমারা সড়কে প্রায় ১০কিলােমিটার বেহাল অবস্থাঃ মানুষের চড়ম দূর্ভোগ

মুহাম্মাদ আবু মুসাঃ বগুড়া গাবতলীর সােনারায়-ডাকুমারা সড়কে পাকা কার্পেটিং উঠে গিয়ে অসংখ্য স্থানে ছােট বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। ফলে সড়কটির উপর দিয়ে সব ধরনের যানবাহন চলাচলে প্রায় অযােগ্য হয়ে পড়েছে। যে কারনে জনসাধারণের পােহাতে হচ্ছে চরম দুর্ভােগ। এই সড়কটি দ্রæত পুনঃ নির্মাণ বা মেরামত করা না হলে উত্তর গাবতলীর মানুষ অনেকটা যােগাযােগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ঠ কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসি। জানা গেছে, গাবতলীর সােনারায়-ডাকুমারা সড়কটির সাথে বগুড়া জেলা শহর ছাড়াও মহাসড়কের অত্যান্ত সর্ম্পক রয়েছে। গাবতলী উপজেলার মধ্য এই সড়ক ডাকুমারা হাট সব চেয়ে বড় গরুর হাট। আবার এই উপজেলায় যে কয়েকটি হাট রয়েছে তার মধ্য সরকার সব চেয়ে বেশী রাজস্ব আয় করে থাকে ডাকুমারা হাট থেকে। এ ছাড়া এই সড়কে বেশ কয়েকটি বন্দর ব্যবসায়ী কেন্দ্রস্থল হিসেবে গড়ে উঠেছে। তাছাড়া এই সড়কের সাথে আরাে বেশ কয়েকটি বন্দর ও হাট বাজারের সর্ম্পক রয়েছে। এ গুলাে থেকে প্রতি বছর সরকার কােটি কােটি টাকা রাজস্ব আয় করে থাকে। গাবতলীর সােনারায়-ডাকুমারা সড়কে রয়েছে হাট-বাজার, বন্দর সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ব্যাংক, বীমা, এনজিওসহ সরকারী বেসরকারী অনেক অফিসও রয়েছে। এই সড়কটির উপর দিয়ে প্রতিদিনই লাখাে মানুষ শতশত যানবাহন নিয়ে চলাচল করে। নানা ধরনের যানবাহন ও পায়ে হেটে যাতায়াত করে থাকে স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসার ছাত্র-ছাত্রী, অফিসগামীসহ লাখাে মানুষ। প্রায় ১০কিলােমিটার গাবতলীর সােনারায়-ডাকুমারা সড়ক রয়েছে ¯ানীয় সরকার প্রকৌশলী অধিদপ্তরের (এলজিইডি) আওতায়। এই সড়ক শুধু দেড় কিলােমিটার কাজ করা ছাড়া সম্পূর্ণ সড়কটির বেহাল অবস্থা রয়েছে। সড়কটির পাকা কার্পেটিং উঠে গিয়ে অসংখ্য¯ান ছােট বড় গর্তের সৃষ্টি হওয়ায় দেখে মনে হবে এটি কােনও সড়ক নয়, মাছ চাষ করা ডােবা অথবা পতিত পড়া সড়ক। এ কারনে প্রতিদিন ছােট খাট দুর্ঘটনা লেগেই আছে। আবার সড়কে সৃষ্টি হওয়া গর্তে ময়লা পানি জমে থাকায় যানবাহনের চাকায় পানি ছিটকে মানুষের শরীরে লেগে কাপড় চােপড় নষ্ট হওয়ায় ঝগড়া বিবাদও সৃষ্টি হচ্ছে। ¯ানীয় সােনারায় ইউপি চেয়ারম্যান অধ্যাপক মফিদুল ইসলাম ও দক্ষিনপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম সাইফুল জানান, এই সড়কটি দ্রæত পুনঃনির্মাণ বা মেরামত করা না হলে উত্তর গাবতলীর লাখাে মানুষ অনেকটা যােগাযােগ বিচ্ছন্ন হয়ে পড়বে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ঠ কর্তপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন তাঁরা। এ ব্যাপারে ¯ানীয় সরকার প্রকৌশলী অধিদপ্তরের (এলজিইডি) গাবতলী উপজেলা প্রকৌশলী রিপন কুমার সাহা জানান, সােনারায়-ডাকুমারা ১০কিলােমিটার সড়কে সােনারায় থেকে দেড় কিলােমিটার কাজ হয়েছে এবং ডাকুমারা থেকে দেড় কিলােমিটার কাজ আগামী ডিসেম্বরে হবে। এ ছাড়া বাকী কাজ গুলাে চলমান প্রক্রিয়া রয়েছে। বগুড়া ¯ানীয় সরকার প্রকৌশলী অধিদপ্তরর (এলজিইডি) নির্বাহী প্রকৌশলী গােলাম মার্শেদ এর সাথে কথা বললে তিনি জানান, সমস্যা বা বেহাল অব¯া হওয়া বিভিন্ন সড়ক পুনঃনির্মাণ বা মেরামত করা আমাদের চলমান প্রক্রিয়া। আশা করছি ২বছরের মধ্য জেলার সকল সড়ক পুনঃনির্মাণ বা মেরামত কাজ সম্পূর্ণ হবে। তিনি (গােলাম মাের্শেদ) আরাে বলেন, গাবতলী উপজেলা প্রকৌশলী’র সাথে কথা বলে যাবতীয় তথ্য নিয়ে প্রয়ােজনীয় ব্যব¯া নেয়া হবে।

No comments

Leave a Reply

nineteen − 1 =

সর্বশেষ সংবাদ