Menu

প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর কন্যা বলেই আজ বাংলাদেশে পদ্মাসেতু নির্মাণ করা সম্ভব হয়েছে -ম.আব্দুর রাজ্জাক

সাজু মিয়া শিবগঞ্জ (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি উত্তরাঞ্চলের দায়িত্ব প্রাপ্ত নেতা ম. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের সৈনিক কখনো তার আদর্শ থেকে কখনো বিপথে যাবে না। যারা বঙ্গবন্ধুর রক্তের সাথে বেঈমানী করেছে তাদের আজ অস্তিত্ব বাংলাদেশে কোন পর্যায়ে রয়েছে তা আপনাদের জানা আছে। খন্দকার মোস্তাক ও জিয়াউর রহমান সামরিক অভ্যার্থন ঘটিয়ে বাংলার মসনদে বসে ছিলো। বেশিদিন টিকেনি সেই ক্ষমতা প্রকৃতি তাকে ফিরে দিয়েছে তার কর্মের ফল। আওয়ামীলীগ কে নিশ্ব¦চিহ্ন করতে স্বাধীনতা বিরোধী জামায়াত বিএনপি চক্র এক হয়ে আওয়ামীলীগের উপর অমানুষিক নির্যাতন চালিয়েছে। আজকে তাদের অস্তিত খুজে পাওয়া দায়। আমি মাহমুদ রহমান মান্নাকে বলছি নিজেকে জাতীয় নেতা ও বুদ্ধিজীবি ভেবে বিভিন্ন জোটের সঙ্গে হাত মিলিয়ে ক্ষমতা দখলের অপচেষ্টায় লিপ্ত ছিলেন। আজকে আপনার নিজেরই অস্তিত্ব নেই। মান্না সাহেব আপনি যে দলেই যাবেন সেই দলের ভর ডুবি সুনিশ্চিত এবং আপনারও ভরা ডুবি আজ বাংলার মানুষ উপলব্ধি করছে। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের যোগ্য উত্তরসুরী গণতন্ত্রের মানুষ কন্যা বিশ্বের ক্ষমতাশীল ব্যক্তিদের মধ্যে তৃতীয় ক্ষমতাশীল ব্যক্তি। শুধু তাই নয় তিনি আধুনিক ডিজিটাল বাংলাদেশের রূপকার। তিনি বঙ্গবন্ধুর কন্যা বলেই আজ নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ শেষ পর্যায়ে আগামী জুন মাসে। এর উদ্বোধন করা হবে। শুধু তাই নয় তার নেতৃত্বে আজকে বঙ্গবন্ধু ট্রানেল, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র সহ বিভিন্ন মেগা প্রকল্প আজ সমাপ্তির পথে। একটি স্বার্থন্বেশী মহল এই উন্নয়ন কর্মকান্ডের বিরোধীতা করে বিভিন্ন মিথ্যা অপ-প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন। আজ বাংলাদেশকে শ্রীলংকার অর্থনীতির সাথে তুলনা করছেন। তাদের চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছেন বাংলাদেশ আজ তলা বিহীন ঝুড়ি থেকে বেড়িয়ে এসে মধ্যম আয়ের উন্নতশীল দেশ হিসাবে বিশ্বের দরবারে মাথা উঁচু করে দাড়িয়েছে। তাই বাংলাদেশের উন্নয়নের ধারাকে গতিশীল রাখতে শেখ হাসিনার বিকল্প নেই। আগামী নির্বাচনে শিবগঞ্জ থেকে নৌকা মার্কাকে জয় যুক্ত করে শেখ হাসিনার হাত কে শক্তিশালী করার আহŸান জানাচ্ছি । তিনি গতকাল বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছা সেবকলীগ শিবগঞ্জ উপজেলা শাখার ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। উপজেলা স্বেচ্ছা সেবকলীগের সভাপতি আহসান হাবিব সবুজ এর সভাপতিত্বে সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ স্বেচ্ছা সেবকলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ জালাল মুকুল ভিপি, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মোঃ কোবাদ হোসেন, বাংলাদেশ স্বেচ্ছা সেবক লীগ জাতীয় পরিষদের সদস্য মোঃ মেহেদী হাসান রবিন, কেন্দ্রীয় সদস্য এ্যাড. উজ্জ্বল প্রসাদ কানু। সম্মলেন উদ্বোধন করেন জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ এর সভাপতি ভিপি সাজেদুর রহমান সাহীন। প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা স্বেচ্ছা সেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক জুলফিকার রহমান শান্ত। উপজেলা স্বেচ্ছা সেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান রিজ্জাকুল ইসলাম রাজু’র সঞ্চালনায় উক্ত সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মোস্তাফিজার রহমান মোস্তা, সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র তৌহিদুর রহমান মানিক। উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা হাবিবুল আলম মাস্টার, ইমদাদুল হক এমদাদ, পৌর আওয়ামীলীগ সভাপতি আমিনুল হক দুদু, সাধারণ সম্পাদক সামছুল ইসলাম, কৃষক লীগ সভাপতি লুৎফর রহমান, সাধারণ সম্পাদক শাহীনুর আলম মাস্টার, যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক শামছুদ্দোহা শামীম, ছাত্র লীগ সাধারণ সম্পাদক মাসুম পারভেজ মুকুল। ২য় অধিবেশনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক প্রার্থীদের বক্তব্য রাখেন স্বেচ্ছা সেবক নেতা সোহেল আক্তার মিঠু, সাইদুর রহমান, শাহীন শাহ মন্ডল, আবু কায়েব, জয়, সুবির দত্ত, সংগ্রাম মোহন্ত, গণেষ কানু প্রমুখ। জেলা স্বেচ্ছা সেবকলীগ সাধারণ সম্পাদক জুলফিকার রহমান শান্ত জানান সম্মেলনে সর্ব সম্মতিক্রমে পুনরায় আহসাব হাবিব সবুজ কে সভাপতি এবং স্থানীয় নেতৃবৃন্দের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে সাধারণ সম্পাদক সহ সহ-সভাপতি সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য সহ পূর্ণাঙ্গ কমিটি ও একই সঙ্গে পৌর স্বেচ্ছা সেবকলীগ কমিটি ঘোষণা করা হবে। এ সংবাদ লিখা পর্যন্ত ২য় অধিবেশন চলছিলো।

No comments

Leave a Reply

twenty − seventeen =

সর্বশেষ সংবাদ