Menu

বগুড়ার সহকারী পুলিশ সুপার (গাবতলী সার্কেল) সাবিনা ইয়াসমীন’ দুই প্রতারক গ্রেফতার

অনলাইনে পণ্য অর্ডার করে প্রতারনার শিকার
সাব্বির হাসান, গাবতলী (বগুড়া) প্রতিনিধি ঃ অনলাইনে পণ্য অর্ডার করে প্রতারনার শিকার হয়েছেন বগুড়ার সহকারী পুলিশ সুপার (গাবতলী সার্কেল) সাবিনা ইয়াসমীন। এ ঘটনায় প্রতারক চক্রের মুলহোতাসহ ২জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলো নারায়নগঞ্জের উত্তর চাষাড়া গ্রামের মৃত জব্বার ভূইয়া ছেলে আনোয়ার সাদাত ওরফে রিয়াদ (৩৬) এবং একই জেলার ফতুল্লা থানার পশ্চিম তল্লা গ্রামের মৃত সেকেন্দার ব্যাপারীর ছেলে সজল হোসেন (২৩)। এদের বিরুদ্ধে গতকাল রবিবার থানার এসআই রিপন মিয়া বাদী হয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলাটি দায়ের করেন।
মামলাসূত্রে জানা গেছে, সহকারী পুলিশ সুপার (গাবতলী সার্কেল) সাবিনা ইয়াসমীনের ব্যক্তিগত ফেসবুক আইডি’র মাধ্যমে জানতে পেরে গত মাসের ৩০ সেপ্টেম্বর ইউরাকাস ডট কম নামে একটি অনলাইনে দেশীয় পণ্য বিক্রয় অ্যাপসে ১৬’শ টাকা মূল্যের ২টি বেডশীট অর্ডার করেন। এছাড়াও একইভাবে ১০০%পিওর ডট কম-এ ১৮’শ ৫০টাকা মূল্যের ২টি বেডশীট ও ১০টি বালিশের কুসন কভার ক্রয়ের জন্য অর্ডার করেন।

অথঃপর গত ১লা অক্টোবর ইউরাকাস ডট কম থেকে সাবিনা ইয়াসমীনের ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে ম্যাসেজ আসে যে, বগুড়া শহরস্থ এসএ পরিবহন পার্সেলে তাঁহার অর্ডার দেয়া মালামাল/পণ্য পাঠিয়েছে। এরপর শহরস্থ এসএ পরিবহন এন্ড কোর্স সার্ভিস থেকে নিশ্চিত করলে থানার এসআই রিপন মিয়া কনষ্টেবল প্রলয় কুমার রায়কে সঙ্গে নিয়ে পার্সেলটি উত্তোলন করতে যায়। পার্সেলটি উত্তোলনের পর মনে সন্দেহ হলে পার্সেলটি উপস্থিত লোকজনের সামনে খুলে দেখেন যে, অর্ডার দেয়া পণ্যের সাথে কোন মিল নেই। ২টি বেডশীটের পরিবর্তে দুই টুকরা ছেঁড়া কাপড় পাঠিয়েছে। এ সময় এসএ পরিবহনের অফিস কতৃপক্ষ বলেন যে, সহকারী পুলিশ সুপার (গাবতলী সার্কেল) সাবিনা ইয়াসমীনের নামে ১০০%পিওর ডট কম থেকে আরেকটি পার্সেল এসেছে। তখন ওই পার্সেলটিও খুললে একই কাপড়ের টুকরা পাওয়া যায়। এরপর সাবিনা ইয়াসমীন ইলেট্রনিক্স কৌশল ব্যবহার করে জানাতে পারেন যে ইউরাকাস ডট কম ও ১০০%পিওর ডট কম একই চক্র। এই চক্রটি নারায়নগঞ্জ শহর থেকে অনলাইনের মাধ্যমে সারা দেশে পণ্য বেচা-কেনার নামে প্রতারনা করে আসছে। পরে বিষয়টি বগুড়া পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূইয়াকে জানালে তার নির্দেশ মোতাবেক নারায়নগঞ্জ সদর থানার অফিসার ইনচার্জকে অবহিত করলে তিনি ওসি (তদন্ত)কে দায়িত্ব দেন। পরে ওসি (তদন্ত) কৌশলে ওই প্রতারক চক্রকে ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা বিষয়টি স্বীকার করেন। এরপর বগুড়া এসপি’র নির্দেশে গতকাল রবিবার ডিবি পুলিশের একটি টিম নারায়নগঞ্জ থেকে ওই প্রতারক চক্রকে আটক করে নিয়ে এসে জিজ্ঞাসাবাদ করলে প্রতারনার বিষয়টি স্বীকার করেন।

এ ঘটনায় থানার এসআই রিপন মিয়া বাদী হয়ে প্রতারক আনোয়ার সাদাত ওরফে রিয়াদ (৩৬) এবং সজল হোসেন (২৩) নাম উল্লেখ করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে প্রতারনা মামলা দায়ের করেন। এ ব্যাপারে সহকারী পুলিশ সুপার (গাবতলী সার্কেল) সাবিনা ইয়াসমীনের সঙ্গে কথা বললে তিনি উপেেরাক্ত তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

No comments

Leave a Reply

three + eighteen =

সর্বশেষ সংবাদ