Menu

বগুড়া-১ আসনের উপ-নির্বাচনে বিএনপি’র প্রার্থী হয়ে আসনটি পুনঃরুদ্ধার করতে চান মোশাররফ চৌধুরী

সোনাতলা সংবাদ ডটকম ডেস্কঃ শুন্য ঘোষিত বগুড়া -১ (সারিয়াকান্দি-সোনাতলা উপজেলা) আসনের উপনির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী হয়ে হারানো আসনটি পুনরুদ্ধার করতে চান জিয়া শিশু কিশোর সংগঠনের কেন্দ্রীয় সাধারন সম্পাদক বিএনপি নেতা মোঃ মোশাররফ হোসেন চৌধুরী।

তিনি একই সাথে ঢাকাস্থ বগুড়া জেলা জাতীয়তাবাদী ফোরাম এর সভাপতি, বগুড়া জেলা বিএনপির সদ্য বিলুপ্ত কমিটির সাবেক শিশু বিষয়ক সম্পাদক সহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত।

অবাধ,সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে তিনি আসনটি দলকে উপহার দিতে পারবেন বলে আশাবাদী। সে লক্ষ্যে তিনি নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু করেছেন। নির্বাচনী এলাকার বিভিন্ন শ্রেনী পেশার লোকজন জনান, মোশাররফ হোসেন চৌধুরী দীর্ঘদিন ধরে এলাকার উন্নয়নের সাথে জড়িত।

এ আসনের বিএনপি দলীয় সাবেক সংসদ সদস্য ( ১৯৯১-৯৬ ১৯৯৬-২০০১ ) সাবেক এম,পি মরহুম ডাক্তার হাবিবুর রহমানের ব্যক্তিগত কর্মকর্তা এবং সাবেক ছাত্র নেতা হিসেবে এলাকার মানুষের সাথে তার দীর্ঘদিনের পরিচয়। সে সুবাদে তিনি এলাকার উন্নয়নে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে অবদান রেখেছেন।

তিনি দুই ঈদ ও পূজার উৎসবে এলাকায় সাধ্যমতো সাহায্য সহযোগিতা করেন। সেই সাথে প্রাকৃতিক দূর্যোগ ও শীতকালে গরীব অসহায়দের পাশে দাঁড়ান। এ ছাড়া সারাবছরই দলের মামলায় ক্ষতিগ্রস্ত নেতাকর্মী সহ সর্বস্তরের নেতাকর্মী ও সাধারন মানুষকে সাহায্য সহযোগিতা করেন।

তার মনোনয়ন প্রসঙ্গে সোনাতলা উপজেলা যুবলের নেতা রবিউল করিম বলেন, বিএনপি নেতা মোশাররফ জনগনের সুখে দুঃখে পাশে থাকেন । আমি তাকেই দলের প্রার্থী হিসেবে চাই। সোনাতলা উপজেলা ছাত্রদেলর আহ্বায়ক হুমায়ুন কবির বলেন, মামলা মোকর্দমাসহ সকল কাজে মোশাররফ হোসেন চৌধুরী আমাদের পাশে থাকেন।

হুমায়ুন বলেন,দীর্ঘদিন ধরে সোনাতলার রাজনীতি একটি বিশেষ পরিবারের কাছে জিম্মি ছিল। মোশাররফ চৌধুরীর হাতধরে সোনাতলা বিএনপি ও অঙ্গদল পূর্বের যেকোন সময়ের চেয়ে অনেক শক্তিশালী। তাই তিনি দলের প্রার্থী হলে অনেক ভালো হবে।

সারিয়াকান্দি পৌর বিএনপির আহবায়ক ইকবাল কবির পলাশ বলেন, দলের নেতাকর্মী ও সাধারন মানুষের পাশে দাঁড়ায় এমন নেতাকে দলের মনোনয়ন দেয়া উচিত। সারিয়াকান্দি পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি শাহাজাহন আলী মুকুল বলেন,দলকে সুসংগঠিত করতে এবং বিপদে পাশে থাকেন এমন নেতাকে দলের মনোনয়ন দেয়া উচিত বলে আমি মনে করি।

এ ক্ষেত্রে মোশাররফ চৌধুরী দীর্ঘদিন যাবৎ নেতাকর্মীদের পাশে আছেন। দলের মনোনয়ন প্রত্যাশী বিএনপি নেতা মোশাররফ হোসেন চৌধুরী বলেন, যমুনা নদী ও বাঙ্গালী নদীর ভাঙ্গন থেকে জনপদকে রক্ষা, স্কুল, কলেজ, মাদরাসা, মসজিদের উন্নয়ন, পোষ্ট অফিস ও টেলিফোন অফিস স্থাপন, আড়িয়ারঘাট ব্রীজ নির্মানসহ এলাকার সার্বিক উন্নয়নে দীর্ঘদিন যাবৎ কাজ করছি। সারাবছরই দলের নেতাকর্মী , গরীব অসহায় মানুষের পাশে দাড়িয়ে সাহায্য সহযোগিতা করে আসছি।

বিশেষ করে গত কয়েক বছর যাবৎ বিভিন্ন রাজনৈতিক মামলায় বিপর্যস্ত নেতাকর্মীদের আইনী সহায়তা দিচ্ছি। দল আমাকে মনোনয়ন দিলে এবং নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু হলে ধানের শীষ বিজয়ী হবে।

তিনি বলেন, বর্তমান ভোটারবিহীন সরকারের দুঃশাসনের জবাব জনগন ভোটের মাধ্যমে দিতে অধীর অপেক্ষায় রয়েছি।কারন দীর্ঘ সময় ধরে জনগন নিজের ভোট নিজে দিতে পারছেন না। আমি শতভাগ আশাবাদী দল আমাকে মনোনয়ন দিলে আমি সর্বশক্তি নিয়ে মাঠে নেমে জনগনের প্রত্যক্ষ ভোটে নির্বাচিত হয়ে গণতন্ত্রের মা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন বেগবান করতে সার্বিক সহযোগীতা করবো।

উল্লেখ্য., গত ১৮ জানুয়ারী আওয়ামীলীগ দলীয় সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নানের মৃত্যুতে আসনটি শূণ্য হয়েছে।

No comments

Leave a Reply

17 − fourteen =

সর্বশেষ সংবাদ