Menu

মিথ্যা মামলা থেকে সাধারণ মানুষদেরকে বাঁচানোর আবেদন জানিয়ে বগুড়া প্রেসক্লাবের সংবাদ সম্মেলন

পাভেল মিয়া,স্টাফ রিপোর্টার: বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলার ২০১৫ সালে ২৫ আগষ্ট সোহান নামের ব্যক্তিকে হত্যা করার মিথ্যা মামলা থেকে সাধারণ মানুষকে বাঁচানোর আবেদন জানিয়ে শনিবার বেলা ১২টার সময় বগুড়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ভুক্তভোগী মোঃ বেলালের স্ত্রী মোছাঃ খাদিজা খাতুন।
সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী বেলালের স্ত্রী উল্লেখ করেন যে, গত ২০১৫ সালে ২৫ আগষ্ট বগুড়া জেলার সারিয়াকান্দি থানাধীন কাটাখালি পশ্চিমপাড়া গ্রামের মোঃ মোজাহার সরকারের পাট ক্ষেত থেকে সোহাগ পিতা: মোঃ শহিদুল ইসলাম এলাইস ওরফে লকুর ২য় পুত্র সোহাগের লাশ পাওয়া যায়। অতঃপর উক্ত মামলার একমাত্র আসামি হিসেবে মৃত্যের বড় ভাই মোঃ সৌরভ(১৯) কে ২০১৫ সালের ৩০ নভেম্বর সারিয়াকান্দি থানা পুলিশ গ্রেপ্তার করে। আসামের সৌরভ বিজ্ঞ আদালতে ১৬৪ ধারার বিধান মোতাবেক জবানবন্দি প্রদান করেন। উক্ত মামলায় সারিয়াকান্দি থানার তৎকালীন এসআই নয়ন কুমার ২০১৬ সালের ১০ ফেব্রæয়ারী আসামের সৌরভ মিয়াকে একমাত্র আসামি হিসেবে বিজ্ঞ আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।
তিনি আরো বলেন উক্ত মামলার বাদী মহিদুল ইসলাম লোগো উক্ত অভিযোগপত্র বিরুদ্ধে নারাজি দাখিল করেন। নারাজ এর প্রেক্ষিতে বিজ্ঞ আদালত পুনরায় জেলা বগুড়া পি.বি.আই কে তদন্তের নির্দেশ প্রদান করেন। পি.বি.আই উক্ত মামলার তদন্তভার পাওয়ার পরে এলাকায় সাধারণ মানুষদেরকে হয়রানি করে।
খাদিজা খাতুন আরো বলেন, আমার স্বামী মোঃ বেলাল এবং মোঃ তহিদুল হোসেন কে আলাদাভাবে গ্রেপ্তার করে শারিরীক ও মানসিক ভাবে নির্যাতন করে তাদের থেকে জোরপূর্বক ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি তে স্বাক্ষর করায়। আমার স্বামী মোঃ বেলাল এবং মোঃ তহিদুল ইসলাম কোনভাবেই উক্ত হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত না। কে বা কাহারা কিংবা অদৃশ্য কোন শক্তির প্রভাবে হত্যাকারীকে বাঁচানোর জন্য হেন সাধারণ গ্রামের খেটে খাওয়া মানুষদেরকে উক্ত মামলার আসামি শ্রেণী ভুক্ত করে যাওয়ার চেষ্টা করছে। আমরা সব সময় আইনের কাছ থেকে অন্যায়ের বিচার চাই। কিন্তু মহুল হত্যাকারীদের বাদ দিয়ে সাধারণ মানুষজনের উপর অন্যায় অত্যাচার কিংবা কোন নির্দোষ মানুষকে মিথ্যা ভাবে হয়রানি করা না হয় তার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি দৃষ্টি দেওয়ার আহ্বান করছি। সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে আমার আকুল আবেদন উক্ত মামলাটি পুনরায় সঠিক তদন্তের মাধ্যমে মুল হত্যাকারী কে আইনের আওতায় এনে নির্দোষ ব্যক্তিদেরকে মুক্ত করা হয়। সংবাদ সম্মেলনের সময় উপস্থিত ছিলেন ভুক্তভোগীর স্ত্রী খাদিজা খাতুন ও তাদের পরিবার বর্গ।

No comments

Leave a Reply

3 + 19 =

সর্বশেষ সংবাদ