Menu

শিবগঞ্জের কেশোরিপুরে বাড়ি ঘর ভাংচুর, সংঘর্ষে আহত ১০ঃ পুলিশের ফাঁকাগুলি, আটক ২

সোনাতলা সংবাদ ডটকম (বালুয়া প্রতিনিধি): বিবাদকৃত পুকুর থেকে মাছধরা নিয়ে সৃষ্ট কলহ-বিবাদের জেরধরে ইটপাটকেল নিক্ষেপ, সংঘর্ষে নারী ও পুরুষসহ কমপক্ষে ১০ জন আহত, ৯টি পরিবারের ঘরের বেড়া ও জিনিসপত্র ভাংচুর, খড়ের পালায় অগ্নিসংযোগ, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে পুলিশের কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলিবর্ষণ, ফায়ার সার্ভিস বাহিনি কর্তৃক আগুন নিয়ন্ত্রণ ও ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে দুইজনকে পুলিশ কর্তৃক আটক করার ঘটনা ঘটেছে। গতকাল বুধবার (৩০ জানুয়ারি) সকাল অনুমান ৭টায় বগুড়া সোনাতলা উপজেলার পাশ্ববর্তী শিবগঞ্জ উপজেলার কেশোরিপুর (কুলাভিটাপাড়া) গ্রামে এ সব ঘটনা ঘটে। আহতরা সোনাতলা ও শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, বগুড়া শজিমেক হাসপাতাল ও বাড়ীতে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এলাকাবাসী ও পুলিশ সুত্রে জানাগেছে, ওই গ্রামের শাহিনগং এবং আব্দুর রহিমগং-এরমধ্যে জমি-জমা নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে কলহ-বিবাদ চলে আসছিল। এরই জের ধরে গত মঙ্গলবার (২৯ জানুয়ারি) বিবাদকৃত পুকুরে মাছধরা নিয়ে কলহ-বিবাদ অতঃপর ধৃতমাছ ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনা ঘটে। এরই কারণে গতকাল বুধবার সকালে আবারও কথাকাটাকাটির একপর্যায়ে পক্ষদ্বয়ের মধ্যে মারপিট, ঘরের বেড়া ও জিনিসপত্রের ভাংচুর করে। এতে শাহিন গং-এর জোবা বেগম, শাহিন, বাদশা, সেকেন্দার, শাহ্আলম এবং আব্দুর রহিম গং-এর সোনা মিয়া, গোলা ও এরশাদুলসহ ৯টি পরিবারের ঘরের বেড়া ও জিনিসপত্র ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এছাড়াও সংঘর্ষে উভয়পক্ষের যথাক্রমে শাম্মি আকতার (১৮), মনোয়ারা বেগম (৫০), গোলাপী বেগম (৫০), শাহিন (৪০) ও গোলেজা বেগম (৫০) এবং অপর পক্ষের বেনু বেগম (১৮), চামুলি বেগম (২২), সোনা মিয়া (৪০), লিটন মিয়া (৩০), মুকুল মিয়া (২৫) আহত হয়। ওই ঘটনায় শাহিনে খড়ের দুটি পালায় অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। সংবাদ পেয়ে শিবগঞ্জ থেকে ফায়ার সার্ভিস কর্মী ও পুলিশ ঘটনা স্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণ করে। মোকামতলা পুলিশ ফাঁড়ি’র ইনচার্জ সনাতন জানান, পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশ কয়েক রাউন্ড ফাঁকাগুলি করেছে এবং ঘটনাস্থল থেকে আনসার আলী ও মামুন নামের দুইজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

No comments

Leave a Reply

3 × four =

সর্বশেষ সংবাদ