Menu

শিবগঞ্জে বিএনপি’র অভ্যান্তরীন ক্রন্দলঃ স্বতন্ত্র প্রার্থী বিউটির গাড়িবহরে হামলা

সোনাতলা সংবাদ ডটকম (শিবগঞ্জ প্রতিনিধি): শিবগঞ্জ উপজেলা স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী নারী নেত্রী বিউটী বেগমের গাড়ি বহরে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার দিবাগত রাত ১০টার দিকে শিবগঞ্জ পাইলট হাইস্কুল এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। হামলার সাথে জেলা বিএনপির বহিস্কৃত নেতা মীর শাহে আলম এর অনুসারী ছাত্রদল নেতা খালিদ হাসান আরমান, মাহাদী হাসান তমাল , মীর মুন, স্বেচ্ছাসেবকদল নেতা রায়হানুল হক রনি ও সোহেল রানা জড়িত বলে দাবি করেছে বিউটি বেগম।
এ ব্যাপারে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী বিউটী বেগম জানান, নির্বাচনী প্রচারণা শেষে তিনি বাড়ি ফিরছিলেন কিন্তু হঠাৎ আনুমানিক রাত ১০টার দিকে শিবগঞ্জ সরকারী পাইলট হাইস্কুল এলাকায় ওষুধ নেওয়ার জন্য গাড়ি থামান। এ সময় ছাত্রদলের চার নেতা তার গাড়িতে হামলা চালিয়ে গাড়ি ভাংচুর করেন। পরে তিনি থানায় ফোন করলে পুলিশ আসার আগেই তারা পালিয়ে যায়।
বিউটি বেগম অভিযোগ করে বলেন, যারা হামলা করেছে তারা বিএনপি থেকে বহিষ্কৃত নেতা মীর শাহে আলমের অনুসারী। তিনি আরো বলেন, এর আগে মীর শাহে আলমের অনুসারী শিবগঞ্জ পৌর বিএনপি’র সভাপতি বুলবুল ইসলাম ও থানা ছাত্রদলের আহ্বায়ক খালিদ হাসান আরমান আমাকে নানা হুমকি ও গালি গালাজ করেছে। এবিষয়ে শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মিজানুর রহমানের সাথে কথা বললে তিনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের জানান, এটা উপজেলা নির্বাচন কে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের সাথে কোন দন্দ্ব নয়। বিএনপির অভ্যন্তরীণ কোন্দল। বিএনপির নেত্রী ও উপজেলা স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী বিউটি বেগমের নির্বাচনী পক্ষে জেলা বিএনপির সাবেক নেতা ও উপজেলা বিএনপির আহবায়ক মীর শাহে আলম কাজ না করায় তিনি শাহে আলমের বিরুদ্ধে বিএনপির ওপর মহলে
অভিযোগ করেন। এতে বিএনপির এই নেতা বহিস্কার হলে তার কর্মীরা ক্ষিপ্ত হয়ে বিউটি বেগমের ওপর হামলা ও গাড়ী ভাংচুর করেন। বিষয়টি এলাকার সাধারণ ভোটারদের মনে অনেক জল্পনাকল্পনার সৃষ্টি করেছেন। এবিষয়ে বিউটী বেগম বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

No comments

Leave a Reply

one × 1 =

সর্বশেষ সংবাদ