Menu

সারিয়াকান্দিতে বর্ষার মৌসুমে ব্রিজের দু’পাশে ধসে যাওয়ার সম্ভাবনা

পাভেল মিয়া, স্টাফ রিপোর্টারঃ বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলার হাটশেরপুর ইউনিয়নের নিজ বরুর বাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পশ্চিম পার্শ্বের রাস্তার ব্রিজটি বন্যার পানির স্রোতে ব্রিজের দু’পাশে ধসে যাওয়া ও গর্ত হয়ে চলাচলে অকোজো হয়ে পড়বে বলে আশঙ্কা করছেন স্থানীয় এলাকাবাসী। এর আগেও ব্রিজের দু’পাশের মাঠি ধসে যেয়ে ব্রিজে উঠার সামনেই মরণ ফাঁদ হয়েছিলো। স্থানীয় কয়েকজনের উদ্যোগে বাশ ও বালির বস্তা দেয়া হয়েছিলো ব্রিজের দু’পাশে। এখনো ওই ভাবেই চলাচল করছে যানবাহনসহ এলাকার মানুষ।
স্থানীয়রা জানান, দীর্ঘদিন থেকে রাস্তাটি সংস্কার না করায় এমন অবস্থা। এ ব্রিজের উপর দিয়ে চলাচল করছে বিভিন্ন যানবাহনসহ এ এলাকার মানুষ। চরবরুবাড়ী, নিজ বরুরবাড়ী, চর গোদাগাড়ী, তাজুরপাড়া, চান্দিনা নোয়ারপাড়া, হাসনাপাড়া,নারচী গ্রামসহ স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থী বিভিন্ন শ্রেণী পেশার কয়েক হাজার লোক যাতায়াত করেন। সকল জনসাধারণের উপজেলার সাথে যোগাযোগের ক্ষেত্রে একমাত্র রাস্তা এটি। এছাড়াও প্রতিনিয়ত এ রাস্তা দিয়ে রিকশা, ভ্যান, ইজিবাইক, সিএনজি বিভিন্ন রকমের মোটরযান চলাচল করে।
সরেজমিনে গিয়ে সচিত্রে দেখা গেছে, কয়েক মাস আগে ব্রীজটির সামনেই প্রায় অর্ধেক রাস্তা ভেঙ্গে বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছিলো। রাস্তাটি ভেঙ্গে বড় গর্তের সৃষ্টি হওয়ায় রাস্তায় চলাচলকৃত যাত্রীবাহি যানবাহন প্রায় দুর্ঘটনায় পতিত হয়ে অনেকেই আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। ভেঙ্গে যাবার পর স্থানীয় কয়েকজনের উদ্যোগে ঐ স্থানে বাশ ও বালির বস্তা দেয়া হয়েছিলো। এরপরও কর্তৃপক্ষ ব্রিজটির নেইনি কোনো ধরনের উদ্যোগ।
স্থানীয় অনেকেই জানান ব্রিজটির এখনি কোনো উদ্যোগ না নিলে বর্ষার মৌসুমে বন্যার পানির স্রোতে ব্রিজের দু’পাশে ভেঙ্গে যাওয়ার সম্ভবনা আছে। এতে এলাকার জনসাধারণ চরম ভোগান্তিতে পড়বে। ব্রিজটি দ্রুত সংস্কার করার প্রয়োজন।
হাটশেরপুর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের মেম্বার শামসুজ্জাহার জোহা বলেন, আমাদের প্রায় প্রতিনিয়ত এ রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে হয়। ব্রিজের দু’পাশে এখন যে অবস্থা, তাতে মনে হয় না এবারের বর্ষার মৌসুমে এই রাস্তার ব্রিজ টিকে থাকবে। অতি দ্রুত ব্রিজের দু’পাশে সংস্কার করা না হলে এখানে বড়ধরনের দুর্ঘটনা ঘটারও সম্ভাবনা রয়েছে। তাই জনস্বার্থে ব্রিজের দু’পাশে রাস্তার সংস্কার করা প্রয়োজন তাই যত দ্রুত সম্ভব সংস্কারের জন্য উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের আশু দৃষ্টি কামনা করেছে এলাকাবাসী।

No comments

Leave a Reply

17 − 12 =

সর্বশেষ সংবাদ