Menu

সারিয়াকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জনবল সংকটে বিপর্যস্ত স্বাস্থ্যসেবা

সোনাতলা সংবাদ ডটকম (সারিয়াকান্দি প্রতিনিধি): বগুড়ার সারিয়াকান্দির উপজেলার ১২টি ইউনিয়নে ও ১টি পৌরসভায় প্রায় ২ লাখ মানুষের স্বাস্থ্য সেবার একমাত্র ভরসা হচ্ছে ৫০ শয্যা বিশিষ্টি সারিয়াকান্দি সরকারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। কিন্তু জনবল সংকটে এই কমপ্লেক্সে কোন উন্নত চিকিৎসা মিলছেনা, তাই ভেঙ্গে পড়েছে বর্তমান স্বাস্থ্য সেবা কার্যক্রম। যার কারণে রোগীদের চিকিৎসা সেবা দিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে ডাক্তারদের। অফিস সূত্রে জানা গেছে, হাসপাতালের ৩৩টি পদের মধ্যে কর্মরত আছেন ৮ জন, নার্স ২৮ টি পদের মধ্যে কর্মরত আছে ২৩ জন, ৩য় শ্রেণির কর্মচারী ১৪২টি পদের মধ্যে কর্মরত আছে ১২৮ জন, চতুর্থ শ্রেণির ২৯টি পদের মধ্যে কর্মরত আছে ১৭ জন। সরকার এ বৃহৎ জনগোষ্ঠীর স্বাস্থসেবা নিশ্চিত করতে ৩১ থেকে ৫০ শয্যার উন্নীত করছে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি। কিন্তু প্রয়োজনীয় ডাক্তার ও জনবল অভাবে সরকারের মহৎ উদ্দেশ্যে ব্যাহত হচ্ছে। ফলে চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে এই উপজেলাবাসী। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ড ভর্তি রোগীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, সাধারন রোগীদের বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে রেফার্ড করে পাঠিয়ে দেয়া হয় জেলা সদরে। নারী ও শিশু ওয়ার্ডের অবস্থা আরও নাজুক। রোগীদের খাবারের পরিবেশ নি¤œমান। হাসপাতালের বিশুদ্ধ পানির অভাব রয়েছে এখানে বাহিরে থেকে মিনারেল ওয়াটার কিনে খাবার পানির প্রয়োজন মিটাতে হয়। হাসপাতাল থেকে কয়েকটা ঔষুধ পাওয়া গেলেও সবধরনের ঔষুধ বাহিরে থেকে কিনে আনতে হয়। রোগীর সংখ্যা বেশি থাকলেও অতিরিক্ত বেড না থাকায় রোগীরা মেঝেতে শুয়ে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন বলে ভর্তিকৃত রোগীরা জানান। এছাড়ও হাসপাতালের টয়েলট দুর্গন্ধময় পরিবেশ বিরাজ করছে। এতে একদিকে যেমন সাধারণ মানুষেরা চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। অন্যদিকে হাসপাতালের চিকিৎসা কার্যক্রম ভেঙ্গে পড়েছে। আরও জানাযায়, জরুরী বিভাগের ৪র্থ শ্রেণির কর্মচারীদের দ্বারা ব্যবস্থা পত্র সেলাই ও ড্রেসিংয়ের কাজ করা হয়। ব্যবস্থা পত্র দেয়ার সময় ঔষুধ কোম্পানির লোকজন নির্দিষ্ট কোম্পানির ঔষুধ লিখতে জরুরী বিভাগের দায়িত্ব রতদের প্রভাহিত করেন। ফলে রোগীর অভিভাবকরা হয়রানির শিকার হয়। এব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ এস,এম, মাহমুদুর রশিদ বলেন, ৩১ শয্যার জনবলে চলছে ৫০ শয্যার হাসপাতাল। তারপরেও যে টুকু জনবল আছে তা দিয়েই আমরা আন্তরিকতার সঙ্গে রোগীদের সর্বোচ্চ সেবা দেয়ার চেষ্টা করে যাচ্ছি। রোগীদের চাপ সামলাতে সব শূন্য পদের চিকিৎসক নিয়োগের জন্য তিনি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেছেন।

No comments

Leave a Reply

1 × one =

সর্বশেষ সংবাদ