Menu

সারিয়াকান্দী পৌরসভার নির্বাচনঃ ফুরফুরে মেজাজে আ’লীগ, টেনশনে বিদ্রােহী, মাঠ গরমে ব্যস্ত বিএনপি প্রার্থী

বদিউদ-জ্জামান মুকুল সােনাতলা (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ আর মাত্র ৩ দিন পর বগুড়ার সারিয়াকান্দী পৌরসভার নির্বাচন। নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রার্থীরা প্রচার প্রচারণায় ব্যস্ত সময় অতিবাহিত করছে। এমনকি শেষ মুহুর্তে এসে পােস্টারে পােস্টাে্রে ছেয়েছে গােটা এলাকা। ওই নির্বাচন আওয়ামীলীগ মনােনিত প্রার্থী মতিয়ার রহমান মতি ফুরফুরে মজাজে থাকলেও টেনশনে রয়েছে বিদ্রােহী প্রাথী শাহী সুমন। তবে মাঠ গরম করতে মড়িয়া হয় উঠেছে বিএনপি মনােনিত নারী প্রার্থী সাবিনা ইয়াসমিন ববী।
বগুড়ার সারিয়াকাদি পৌরসভা প্রতিষ্ঠার পর এবারই প্রথম বিএনপি ওই পৌরসভায় নারী প্রার্থী দিয়েছে। তবে স্বতন্ত্র প্রার্থী বীর মুক্তিযাদ্ধা আলী আজগর মাষ্টার জগ প্রতিক নিয়ে সুযােগের অপেক্ষায় রয়েছেন।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, আর মাত্র ৩ দিন পর বগুড়ার সারিয়াকাদি পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এবারই প্রথম ইভিএম পদ্ধতিতে ওই পৌরসভায় ভােটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।
ওই পৌরসভায় মােট ভােটার সংখ্যা ১৪ হাজার ১শ ৫৮ জন এর মধ্য পুরুষ ভােটার ৬ হাজার ৯ শত ৬০ জন এবং নারী ভােটার ৭ হাজার ১শত ৯৮ জন। মােট ৯টি কেদ্রের ৫০টি বুথে ভােটাররা ভােট প্রয়ােগ করবেন।
শেষ মুহুর্তে এসে প্রচার প্রচারনায় জমে উঠেছে ওই পৌরসভার নির্বাচন। মেয়র পদে বাংলাদশ আওয়ামীলীগ মনােনীত নৌকা প্রতিকের প্রার্থী বর্তমান উপজলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহায়ক মতিউর রহমান মতি। বি,এন,পি মনােনীত ধানের শীষ প্রতিকের প্রার্থী সাবিনা ইয়াসমিন বেবী। বর্তমান মেয়র আ’লীগ নেতা আলমগীর শাহী সুমন বিদ্রােহী প্রার্থী হিসাবে নারিকেল গাছ প্রতিক ও সাবেক মুক্তিযােদ্ধা কমান্ডার বীর মুক্তিযােদ্ধা আলী আজগর মাষ্টার জগ প্রতিক নিয়ে স্বতন্ত্র হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। এছাড়া সংরক্ষিত ৩টি ওয়ার্ডে ১১ জন এবং সাধারণ কাউন্সিলর ৯টি পদে ৩১ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন।
প্রয়াত সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নানের দীর্ঘদিনের উনয়ন কর্মকান্ড বর্তমান সারিয়াকান্দীতে আওয়ামীলীগের শক্ত ঘাটিতে পরিনত হয়েছে। সক্ষেত্রে ভােটারা উন্নয়নের পক্ষেই থাকার ইঙ্গিত দিয়েছেন। ভােট গ্রহণের জন্য ৯ জন প্রিজাইডিং অফিসার, ৫০ সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার এবং ১০০ জন পােলিং অফিসার নিয়ােগ করা হয়েছে।
এ বিষয় সহকারি রিটার্নিং অফিসারের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও সারিয়াকান্দী উপজলা নির্বাচন অফিসার সাখাওয়াত হােসেন জানান, প্রতিটি ভােট কেন্দ্রে ১ জন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও ষ্ট্রাইকিং ফাের্স মােতায়েন থাকবে। এছাড়া ২ প্লাটুন বিজিবিসহ ষ্ট্রাইকিং ফাের্স হিসাবে র‌্যাব ও পুলিশ মােতায়েন থাকবে। প্রতিটি কেদ্রের জন্য ১৪ জন আনসার, ৪ জন পুলিশ মােতায়ন থাকবে। এছাড়াও ১ জন জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রট মােতায়েন থাকবে। তিনি আরও জানান, ৫টি কেন্দ্রে অধিক গুরুত্বপূর্ন হিসেবে ধরে নেওয়া হয়েছে। আমরা সবার সহযােগিতা নিয়ে সুষ্ঠু, শাÍিপূর্ন নির্বাচন উপহার দিতে চাই। তিনি জানান, প্রস্তুতির কােনও কমতি নেই। ইতিমধ্যই প্রয়ােজনীয় সকল প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

No comments

Leave a Reply

six + seventeen =

সর্বশেষ সংবাদ