Menu

সুখানপুকুরে বন্যায় দেড় কোটি টাকার মাছ ভেসে যাওয়ায় মৎস্য চাষির স্বপ্নভঙ্গ

সোনাতলা সংবাদ ডটকম (আমিনুর ইসলাম, গাবতলী বগুড়া): বগুড়ার গাবতলীতে বন্যায় এক মৎস্য চাষির লিজকৃত ৬ পুকুরের ১৫‘শ মন বিভিন্ন প্রজাতির মাছ ভেসে গিয়ে দেড় কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। স্বপ্নভঙ্গ হয়ে মাথায় হাত পড়েছে ওই মৎস্য চাষির। তার আশা এখন দুরাশায় পরিনত হয়েছে। সুখানপুকুর এলাকার আনিছুর রহমান মিন্টু দীর্ঘদিন ধরে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের পুকুর লিজনিয়ে মৎস্য চাষ ও ব্যবসা করে আসছিল। পাশাপাশি সে হ্যাছারীর মাধ্যমে ডিম ফুঠিয়ে পোনামাছ উৎপাদন করে বাজার জাত করেন। মৎস্য চাষি আনিছুর রহমান মিন্টু জানান, নেপালতলী ইউনিয়নের ৫০ বিঘা বয়েরমারী বিল, ২০ বিঘা মাটিয়াল বিল, ৬ বিঘা সর্ধনকুটি বিল, ১৬ বিঘা কাজিফার্ম পুকুরসহ আরো ৬ বিঘা পরিমান ২ টি পুকুর ২৫ লাখ টাকায় লিজ গ্রহন করেন। তাতে গলসা টেংরা, মাগুর, শিং, রুই, কাতলা, সিলভার কাপ, মৃগেল ও পাবদাসহ দেশি বিভিন্ন জাতের মাছ ছেড়ে দেন। মাছ গুলো ১ কেজি থেকে ৫ কেজি ওজন হয়েছিল। এখন শুধু বাজার জাতকরার অপেক্ষায় ছিল। এসকল পুকুর থেকে ১৫‘শ (১৫০০) মন বিভিন্ন প্রজাতির মাছ ভেসে গিয়ে দেড় কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। তার এই সকল পুকুর ও বিলে ১৭ জন মাসিক বেতনের শ্রমিক দীর্ঘদিন ধরে কাজ করছেন। তাদেরও বেতন ভাতা বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে। এছাড়াও তার বিছমিল্লাহ্ হ্যাছারী এবং মৎস্য খামারের বিভিন্ন প্রজাতীর পোনা মাছ ভেসে গেছে। বন্যায় মাছ ভেসে গিয়ে তার বড় ধরনের আর্থিক ক্ষতি হয়ে আশার স্বপ্নভঙ্গ হয়েছ। উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোসাঃ আয়েশা খাতুন’র সাথে যোগোযোগ করা হলে তিনি জানান, বন্যায় মৎস্য চাষি আনিছুর রহমান মিন্টু’র লিজকৃত বিল ও পুকুরের দেড় কোটি টাকার বিভিন্ন প্রজাতির মাছ ভেসে যাওয়ার বিষয়টি আমাকে অবগত করেছেন। আমরা সরজমিন তদন্ত করে উর্দ্ধতন কতৃপক্ষের কাছে প্রতিবেদন দাখিল করব।

No comments

Leave a Reply

five × 4 =

সর্বশেষ সংবাদ