Menu

সুখানপুকুরে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলাঃ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক গ্রেপ্তার

সোনাতলা সংবাদ ডটকম (সাব্বির হাসান, বগুড়া প্রতিনিধি): বগুড়ার গাবতলীতে ৫ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে তেলিহাটা মধ্যপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সাইফুল ইসলাম হিরু (৪৩) নামের এক সহকারী শিক্ষককে ৩ঘন্টা অবরুদ্ধ করে রেখেছে স্থানীয় জনগণ। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শিক্ষক হিরুকে আটক এবং ভিকটিমকে উদ্ধার করে থানায় এনেছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ছাত্রীর মা বাদী হয়ে নারী-শিশু নির্যাতন আইনে থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছে।
মামলা ও একাধিকসূত্র জানায়, উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের তেলিহাটা মধ্যপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সাইফুল ইসলাম হিরু গত ৩০জুলাই দুপুরে স্কুলের ৫ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে টিফিন খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে পার্শ্ববর্তী তার বাড়ীতে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর ওই ছাত্রীর শরীর থেকে কাপড়-চোপড় খুলে বিভিন্নভাবে যৌন নিপীড়নের এক পর্যায়ে ধর্ষন করে। স্কুল থেকে ফিরে ছাত্রী বিষয়টি তার অভিভাবকদের জানায়। বিষয়টি জানতে পেরে অন্যান্য ছাত্রীরা আতঙ্কিত হয়ে স্কুলে আসা বন্ধ করে দেয়। পরে এ বিষয়ে ছাত্রীর বাবা-মা স্কুলের প্রধান শিক্ষকের কাছে নালিশ জানালে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে স্কুলে মিমাংসাকল্পে এক বৈঠক ডাকা হয়। বৈঠক চলাকালে স্থানীয় জনগণ বিক্ষুব্ধ হয়ে শিক্ষক সাইফুল ইসলাম হিরুকে স্কুলকক্ষে ৩ঘন্টা আটকে রাখে। খবর পেয়ে থানার ওসি সেলিম হোসেন, ওসি অপারেশন আব্দুল গণি, এসআই কান্তি কুমার মোদকসহ একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ভিকটিমসহ শিক্ষক হিরুকে আটক করে থানায় আনে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর মা সালেহা বেগম বাদী হয়ে নারী-শিশু নির্যাতন আইনে থানায় একটি ধর্ষন মামলা দায়ের করে। এ ব্যাপারে থানার ওসি সেলিম হোসেন বলেন, ভিকটিমের জবানবন্দি অনুযায়ী অভিযুক্ত শিক্ষককের বিরুদ্ধে একটি ধর্ষন ও ধর্ষনের চেষ্টা মামলা গ্রহন করা হয়েছে। এরই প্রেক্ষিতে অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেফতার দেখিয়ে আজ শুক্রবার জেল হাজতে প্রেরণ করা হবে। সেইসাথে ভিকটিমকেও আজ ডাক্তার পরীক্ষার জন্য বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হবে।

No comments

Leave a Reply

4 × 1 =

সর্বশেষ সংবাদ