Menu

সোনাতলার সৈয়দ আহম্মদ কলেজ হাট ইজারাভুক্ত না হওয়ায় লাখ লাখ টাকার রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার

সোনাতলা সংবাদ ডটকম (বদিউদ-জ্জামান মুকুল সোনাতলা): বগুড়ার সোনাতলায় মাদ্রাসা চত্বরে গরুর হাট বসায় নষ্ট হচ্ছে খেলার মাঠ। অপর দিকে দীর্ঘ সময় ধরে হাটটি ইজারাভুক্ত না হওয়ায় সরকার প্রতিবছর লাখ লাখ টাকা রাজস্ব হারাচ্ছে।

বগুড়ার সোনাতলা উপজেলা সদর থেকে প্রায় ১৩ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থিত দিগদাইড় ইউনিয়নের সৈয়দ আহম্মদ কলেজ ষ্টেশন। ওই ষ্টেশন সংলগ্ন স্থানে ১৯৯০ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় সৈয়দ আহম্মদ আলিম মাদ্রাসা।

প্রথমে হাতে গোনা শিক্ষার্থী নিয়ে প্রতিষ্ঠানটির পদযাত্রা শুরু হলেও খুব অল্প সময়ের মধ্যে ওই মাদ্রাসায় শিক্ষার্থীর সংখ্যা বাড়তে থাকে। বর্তমানে ওই মাদ্রাসায় শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৫৪৫ জন।

ওই মাদ্রাসার ক্যাম্পাসে রয়েছে একটি বিশাল মাঠ। সেই মাঠে দীর্ঘ প্রায় ২৯ বছর যাবত প্রতি বৃহস্পতিবার গরুর হাট বসে। হাটে আসা গরুর মল মূত্র দূর্গন্ধে ও হাটুরিয়াদের অবাধ যাতায়াতের ফলে মাদ্রাসার মাঠটি স্যাতস্যাতে অবস্থার সৃষ্টি হয়।

এছাড়ার মল মূত্রের দূর্গন্ধে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্বাভাবিক পরিবেশ বিঘিœত হচ্ছে। স্বাধীনতার পর বসা হাটটি আজও ইজারাভুক্ত হয়নি। ফলে সরকার প্রতিবছর কোটি কোটি টাকা রাজস্ব হারাচ্ছে।

এ বিষয়ে স্থানীয় লোকজন জানান, মাদ্রাসা মাঠে গরুর হাট বসার ফলে শিক্ষার স্বাভাবিক পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। পাশাপাশি গরু ছাগলের মল মূত্রের দূর্গন্ধে শিক্ষার্থী সহ শিক্ষক শিক্ষিকাদের শ্রেণীকক্ষে টেকা দায়।

এ বিষয়ে ওই মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মোঃ আব্দুল মোমিন জানান, মাদ্রাসার আলিম বিভাগ এখনও এমপিওভুক্ত হয়নি। আলিম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের পাঠদানে নিয়োজিত চারজন শিক্ষকের মাসিক সম্মানি ভাতা ওই হাট কমিটির মাধ্যমে মাদ্রাসার ফান্ডে জমা হয়।

এ বিষয়ে সোনাতলা উপজেলা চেয়ারম্যান এড. মিনহাদুজ্জামান লীটনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, হাটটি ইজারা ভুক্ত করতে উপজেলা প্রশাসন চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ শফিকুর আলমের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, হাটটি ইজারাভুক্ত করতে প্রাথমিক কার্যক্রম শুরু হয়েছে। খুব অচিরেই হাটটি সরকারের আওতাভুক্ত হবে।

No comments

Leave a Reply

10 + 8 =

সর্বশেষ সংবাদ