Menu

সোনাতলায় আওয়ামী লীগ অফিসে হামলা, ককটেল বিস্ফোরণ ভাংচুরঃ আহত ১০

সোনাতলা সংবাদ ডটকম (বদিউদ-জ্জামান মুকুল, সোনাতলা): বগুড়ার সোনাতলায় বিএনপি’র পথ সভার কর্মীরা জোড়গাছা ইউনিয়নের হাটকরমজা আওয়ামীলীগের আঞ্চলিক কার্যালয়ে ককটেল বিস্ফোরণ করে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে।

এ সময় বাধা দিলে আওয়ামীলীগের ১০জন নেতাকর্মী আহত হয়। এ ঘটনার প্রতিবাদে গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিবাদ সভা শেষে হামলাকারীদের দ্রæত আইনের আওতায় এনে গ্রেফতারের দাবি জানানো হয়।

গত বুধবার সন্ধ্যার পর বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার জোড়গাছা ইউনিয়নের হাটকরমজা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি’র) পথসভা ও গণসংযোগ শেষে দলীয় নেতাকর্মীরা মোটর সাইকেল, মাইক্রোবাস যোগে উপজেলার সৈয়দ আহম্মদ কলেজ ষ্টেশনের দিকে রওনা দেয়।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি মোঃ শাহজাহান ও বিএনপি’র মনোনিত প্রার্থী একেএম আহসানুল তৈয়ব জাকিরের গাড়ির বহর হাটকরমজা সুখদহ নদীর উপর ব্রীজ অতিক্রম করার সাথে সাথে গাড়ি বহরের পিছনের নেতাকর্মীরা হাটকরমজা আওয়ামীলীগ আঞ্চলিক কার্যালয়কে লক্ষ্য করে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়।

এ সময় আওয়ামীলীগের অফিসের মধ্যে থাকা ১৫/১৬ জন নেতাকর্মী টিভি দেখছিল।তারা বিকট শব্দে আতঙ্কিত হয়ে অফিস ত্যাগ করার সময় তাদের উপর ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে। এতে করে কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়।

আহতরা হচ্ছেন, ৭নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদত জামান লিটন (৪০), আওয়ামীলীগ নেতা মোকলেছুর রহমান (৩৫), ৭নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি শিহাব উদ্দিন (২৭), আওয়ামীলীগ কর্মী মহিদুল ইসলাম (৩৫) হেলাল উদ্দিন (৪৮), আব্দুল মালেক (৪২), আবুল হোসেন (৫২), অলিউল্লাহ টিটু (২৮), জিএম (২৫), পিন্টু মিয়া (২৮)।

আহতদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনার পর আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী সাহাদারা মান্নান ওই রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ৭নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি শাহজাহান আলীর সভাপতিত্বে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদত জামান লিটন, আফছার আলী আকন্দ, জাহিদুল ইসলাম, মোজাফ্ফর হোসেন, মনু মিয়া।

এ বিষয়ে জোড়গাছা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল মোমিন মাষ্টার জানান, বিএনপি’র নেতাকর্মীরা সভা শেষ করে যাওয়ার সময় আওয়ামীলীগ অফিস লক্ষ করে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়।

এ সময় নেতাকর্মীরা অফিসের পিছনে থাকা সুখদহ নদী অতিক্রম করে প্রাণ রক্ষা করে। এ সময় তাদের ইট পাটকেলের আঘাতে আমাদের নেতাকর্মী আহত হয়।

এ বিষয়ে সোনাতলা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জিয়াউল করিম শ্যাম্পু জানান, বিএনপি’র নেতাকর্মীরা হামলা চালিয়ে বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রী ও প্রয়াত সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নানের ছবি সহ অফিসের মূল্যবান ফার্নিচার ভাংচুর করে।

এ বিষয়ে সোনাতলা থানার ওসি আব্দুল্লাহ আল মাসউদ চৌধুরীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ঘটনার পরপর পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। পুলিশ অভিযুক্তদের গ্রেফতার করতে তৎপর রয়েছে।

No comments

Leave a Reply

15 + thirteen =

সর্বশেষ সংবাদ