Menu

সোনাতলায় করোনা পরিস্থিতিতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও জমজমাট ভাবে চলছে কোচিং ব্যবসা

সোনাতলা সংবাদ ডটকম (সোনাতলা প্রতিনিধি): করোনা ভাইরাসের বন্ধ রয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। আগামী ৭ আগষ্ট পর্যন্ত সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। তবুও বগুড়ার সোনাতলা উপজেলায় জমজমাট ভাবে চলছে কোচিং ব্যবসা ৷

এসব কোচিং সেন্টারে ষষ্টশ্রেণী হতে দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের সকাল থেকে রাত পর্যন্ত পড়ানো হচ্ছে। আজ বুধবার উপজেলার কয়েকটি এলাকায় গিয়ে শিক্ষার্থীদের কোচিং করাতে দেখা গেছে। তবে ওই কোচিং সেন্টার গুলোতে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মুখে দেখা যায়নি মাক্স ও নিরাপদ দূরত্ব।

উপজেলার মধুপুর ইউনিয়ননের হরিখালী বাজার সংলগ্ন শহিদুল ইসলাম, শালিখা উত্তর পাড়ায় আব্দুল ওয়াহেদ, পাকুল্লা ইউনিয়নের দহপাড়া গ্রামের আব্দুল কাঁফি আকন্দকে শিক্ষার্থীদের কোচিং করাতে দেখাগেছে।

তারা প্রতিদিন প্রত্যেক ব্যাচে ২০/২৫ জন শিক্ষার্থীদের ব্রেন্সে গাঁদাগাদি করে বসিয়ে পাঠদান করাচ্ছেন। শালিখা এলাকার একজন শিক্ষক বলেন, ছাত্র/ছাত্রীরা আসে তাই আমি তাদের পড়াই।

তিনি আরো বলেন, আমি পড়াব আপনাদের কিছু করার থাকলে করেন ৷পাকুল্লার দহপাড়া শিক্ষক আব্দুল কাঁফি আমাদের প্রতিবেদককে দেখে কোচিং সেন্টার থেকে ভোঁ দৌড় দেয়। পরে মুঠোফোনে ক্ষিপ্ত হয়ে বলেন, আমি শিক্ষার্থীদের পড়াব প্রশাসন আমার কিছুই করতে পারবে না।

এছাড়া উপজেলার কর্পুরহাট, বারোঘড়িয়া, সৈয়দ আহম্মদ কলেজ স্টেশন ও বটতলা, হাটকরমজা, চরপাড়া, ভেলুরপাড়া, মহিচরন, বালুয়াহাট এলাকাতে প্রকাশ্যেই চলছে কোচিং ব্যবসা ৷

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ আজিজার রহমান বলেন, বিষয়টি আমি জানি না। তবে আপনার মাধ্যমে শুনলাম। অচিরেই সব কয়টি কোচিংয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে ৷

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ শফিকুর আলম বলেন, করোনার মধ্যে কোচিং পরিচালনা কারীদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

No comments

Leave a Reply

four + eight =

সর্বশেষ সংবাদ