Menu

সোনাতলায় জলাশয় থেকে মাছ ধরার জেরে সংঘর্ষঃ উভয় পক্ষের ১৫ জন আহত

সোনাতলা সংবাদ ডটকম (লতিফুল ইসলাম, সোনাতলা): বগুড়ার সোনাতলায় বাঙালি শাখা নদীর জলাশয়ে মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষের মারপিটে ১৫ জন নারী-পুরুষ আহত হয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

আহতরা হলো ফজলুল বারী, জাহিদ হাসান, জাকিয়া বেগম, শাহজাহান আলী, তোফাজ্জল হোসেন, তরিকুল ইসলাম, স্বপ্না খাতুন (১৮), মইদুল ইসলাম হোসেন, শ্রী সন্তোস, অনিল ও শ্রী মনোরঞ্জন দাস। বাকী ৫ জন প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়িতে ফিরে গেছে।

আহতদের পরিবার সুত্রে জানা যায়, শনিবার দুপুরে উপজেলার সদর ইউনিয়নের বিশ^নাথপুর গ্রামের বাঙালি শাখা নদীর জলাশয়ে শহিদুল ইসলাম ছদরুল পক্ষের লোকজন মাছ ধরছিল।

এ সময় সোনাতলা সদর ইউনিয়ন মৎস্য সমবায় সমিতির সদস্যরা মাছ ধরতে নিষেধ করলে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে মারপিটের ঘটনা ঘটে।

এব্যাপারে ছদরুল জানান, আমাদের পৈত্রিক জমির জলাশয়ে আমরা ৩৪টি পরিবার প্রতি বছরের ন্যায় এবারও মাছ ধরতে যাই। হঠাৎ করেই চকনন্দন গ্রামের কয়েকজন মাঝি এসে মাঝ ধরতে বাঁধা প্রদান করে এবং আমাদের উপর চড়াও হয়।

অপর দিকে মৎস্য সমবায় সমিতির সদস্য অনিল চন্দ্র প্রাং জানান, আমরা সমিতির সদস্যরা অনেকদিন আগে থেকেই ওই জলাশয়ে মাছ ধরে আসছি।

ওই ঘটনায় তৃতীয় পক্ষের আহত ফজলুল বারী জানান, জলাশয়ের সাথে আমার কোনো সম্পর্ক নেই। সন্দেহমূলকভাবে আমাকেসহ ৫জনকে মারপিট করা হয়েছে। এব্যাপারে সোনাতলা থানার এসআই মহিউদ্দিন জানান, মৌখিক সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে উভয় পক্ষকে আইন শৃঙ্খলা বজায় রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আমরা চলে আসার পর সেখানে উভয় পক্ষের মধ্যে মারপিট হওয়ার খবর শুনেছি।

এব্যাপারে সোনাতলা থানা অফিসার ইনচার্জ আব্দুল্লাহ আল মাসউদ চৌধুরী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ‘অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।’ দুটি পক্ষে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

No comments

Leave a Reply

three × one =

সর্বশেষ সংবাদ