Menu

সোনাতলায় তালিকায় নাম থাকলেও গত ৯ মাসে ভিজিডি কার্ড ও চাল পাননি প্রায় ২০জন দুস্থ নারী

সোনাতলা সংবাদ ডটকম (লতিফুল ইসলাম, সোনাতলা): বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার জোড়গাছা ইউনিয়নে ভিজিডি কার্ড হয়েছে গত বছরের ডিসেম্বর মাসে। চলতি বছরের জানুয়ারী মাস থেকে কার্ডধারী প্রতিজন নারী পাচ্ছেন ৩০ কেজী চাল। আগামী বছরের ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত ২ বছর কার্ডধারী দুস্থ নারীরা চাল পাবেন। ইতোমধ্যে ৭মাস চাল দেওয়া হয়েছে। তবুও ভিজিডি কার্ড ও কার্ডের চাল পাননি প্রায় ২০ জন নারী। এমনকি তারা জানেন না ভিজিডি কার্ডে তাদের নাম আছে। ওই কার্ডগুলো দিয়ে কে চাল উত্তোলন করছে তা জানাতে পারেননি ইউপি চেয়ারম্যান রোস্তম আলী মন্ডল।

জানাগেছে, উপজেলার জোড়গাছা ইউনিয়নে ২০১৯-২০ সাল ২ বছরের জন্য গত ডিসেম্বর মাসে ৪৩০জন দুস্থ নারীর তালিকা করে ইউনিয়ন পরিষদ। যা চলতি বছরের জানুয়ারী মাস থেকে চাল দেওয়া হয়।

জোড়গাছা ইউনিয়নের সোনাকানিয়া গ্রামের ডাবলু মিয়ার স্ত্রী আজেবা বেগম, ভিজিডি কার্ডে তার সিরিয়াল নং ৯৩। একই গ্রামের কালু সোনারের স্ত্রী রেবেকা বেগম, ভিজিডি কার্ডে তার সিরিয়াল নং ২২৬। একই গ্রামের রুহুল আমিনের স্ত্রী লেবু বেগম আজেবা বেগম, ভিজিডি কার্ডে তার সিরিয়াল নং ২৪৭। ছিচারপাড়া গ্রামের ফারুক হোসেনের স্ত্রী রানী বেগম, ভিজিডি কার্ডে তার সিরিয়াল নং ৩৩। তারা ভিজিডি কার্ড ও চাল পাননি। ওই অসহায় নারীরা জানান, তারা নিজেরাই জানেনা ভিজিডি কার্ডের তালিকায় তাদের নাম আছে। পরে লোকমুখে তালিকায় নাম থাকার বিষয়টি জানতে পারেন। বিষয়টি ইউপি মেম্বার চেয়ারম্যানদের বলেও তারা সদুত্তর দিতে পারেনি।

তারা বলেন, সংসারে নুন আনতে পান্তা ফুরানো অবস্থা। ভিজিডি কার্ডের চাল পেলে সংসারের একটু উন্নতি হতো। কিন্তু তালিকায় নাম থেকেও কার্ড ও চাল পাচ্ছিনা। তারা আরও বলেন, আমাদের নাম ব্যবহার করে যারা গত ৭মাস ধরে চাল উত্তোলন করছে তাদের বিচার চাই।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক ইউপি সদস্য জানান, জোড়গাছা ইউনিয়নে ৪৩০টি ভিজিডি কার্ডের মধ্যে প্রায় অর্ধশতাধিক কার্ড তালিকায় যাদের নাম আছে তারা পায়নি। এতে প্রকৃত সুবিধাভোগীরা পাচ্ছেনা সরকারী সহযোগীতা সরকারের সুনাম ক্ষুন্ন হচ্ছে।

জোড়গাছা ইউপি চেয়ারম্যান রোস্তম আলী মন্ডলের সাথে মুঠোফোনে কথা বললে তিনি কোনও বক্তব্য না দিয়ে ফোন কেটে দেন।

সোনাতলা উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জাকির হোসেন জাকির বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দূর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিয়েছে। তাই আমি মনে করি দূর্নীতিবাজরা যতোই শক্তিশালী হোক তাকে আইনের আওতায় আনা প্রয়োজন।

No comments

Leave a Reply

fourteen + sixteen =

সর্বশেষ সংবাদ