Menu

সোনাতলায় দাদন ব্যবসায়ীদের টাকার চাপঃ প্রবাসীর স্ত্রী’র মৃত্যু নিয়ে জনমনে নানা প্রশ্ন

সোনাতলা সংবাদ ডটকম (স্টাফ রিপোর্টার): বগুড়ার সোনাতলায় এক প্রবাসীর স্ত্রীর মৃত্যু নিয়ে জনমনে নানা প্র্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে। কেউ বলছেন, স্বাভাবিক মৃত্যু। আবার কেউ কেউ বলছেন, দাদন ব্যবসায়ীদের ঋণের চাপে গ্যাস ট্যাবলেট খেয়ে আত্মহত্যা করেছে লাকি বেগম নামের ওই গৃহবধু।

এলাকাবাসী ও থানা সূত্রে জানা গেছে, বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার জোড়গাছা ইউনিয়নের দক্ষিণ চরপাড়া গ্রামের আব্দুল বারী গত ২০/২২ বছর পূর্বে সৌদি আরবে যান। তার স্ত্রী লাকি বেগম বাড়ির পার্শ্ববর্তী বিজিবি সদস্য রাজু মিয়ার স্ত্রী লিলি বেগমের নিকট থেকে লাভের উপর ২ লাখ ৬২ হাজার টাকা ঋণ নেয়। বিভিন্ন সময় ওই নারী দাদন ব্যবসায়ী লাকি বেগমকে টাকার জন্য চাপ প্রয়োগ করে।

এরই এক পর্যায়ে গতকাল সোমবার সকালে লিলি বেগম তার দাদনের টাকা পরিশোধের জন্য চাপ দিলে ওই গৃহবধু টাকা দিতে না পেরে মান অভিমানে গ্যাস ট্যাবলেট পান করে। এতে করে সে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে তার আত্মীয়স্বজন প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য স্থানীয় চরপাড়া বাজারে নিয়ে যাওয়ার পথে ওই গৃহবধু মারা যায়।

এ দিকে ওই গৃহবধুর আপন সহোদর দুই ভাই কমল ও তাহের পুলিশ প্রশাসনকে জানান, তার বোন গতকাল সকালে উচ্চ রক্তচাপে মারা যায়। এদিকে ওই গৃহবধু বেসরকারী এনজিও ব্যুরো বাংলাদেশ থেকে প্রায় ৫ লাখ টাকা ঋণ নিয়েছে বলে ওই সংগঠনের কর্মসূচি সংগঠক আহসান হাবিব জানান।

এদিকে এলাকাবাসী আরও জানান, ওই গৃহবধু বিভিন্ন ব্যক্তি ও এনজিও প্রতিষ্ঠানের নিকট থেকে প্রায় ১০/১২ লাখ টাকা ঋণ নিয়েছে। ঋণের টাকার চাপে সে আত্মহত্যা করতে পারে।

এদিকে গতকাল সোমবার বেলা সাড়ে ১২টায় ওই এলাকায় গিয়ে সরজমিনে খোঁজ খবর নিয়ে জানা গেছে, সৌদি প্রবাসীর স্ত্রী লাকি বেগমের বাড়ি থেকে লিলি বেগম নামের এক পাওনাদার (দাদন ব্যবসায়ী) প্রায় দেড় লাখ টাকা মূল্যের একটি বিদেশী গাভী নিয়ে যায়। এতে ওই গৃহবধু হৃদযন্ত্রের ক্রীয়া বন্ধ হয়ে মারা যায়।

এ বিষয়ে সোনাতলা থানার ওসি রেজাউল করিম রেজা জানান, নিহত গৃহবধু লাকি বেগমের স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে বলে তার ছোট ভাই ও আত্মীয়স্বজন দাবি করায় এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের অনুরোধে লাশটি ময়না তদন্ত না করেই দাফন করে তার আত্মীয়স্বজন।

No comments

Leave a Reply

fourteen − two =

সর্বশেষ সংবাদ