Menu

সোনাতলায় দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৫ঃ থানায় অভিযোগ

আব্দুর রাজ্জাক, সোনাতলাঃ বগুড়ার সোনাতলা উপজেলা বালুয়া ইউনিয়নের মহিষাবাড়ী (কানিপড়া) গ্রামে ড্রেণ নির্মাণকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধে মারপিটের ঘটনা ঘটেছে।

মারপিটে উভয় পক্ষের ৫জন আহত হয়েছে।

আহতরা হলো মহিষাবাড়ী গ্রামের রেজাউলের মেয়ে মিতু খাতুন, স্ত্রী রেহেনা বেগম ও তার শ্বাশুরী শিউলি বেগম, বুলু মোল্লার স্ত্রী রেনু বেগম, ও আনারুলের স্ত্রী শান্তনা বেগম। এদের মধ্যে মিতু উপজেলা স্বাস্থকমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছে। বাকীরা বাড়ীতেই পাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে।

এ বিষয়ে মিতুর বাবা রেজাউল ইসলাম বাদী হয়ে ৭ জনকে অভিযুক্ত করে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ ও সরেজমিনে জানা যায়, বালুয়া ইউনিয়নের মহিষাবাড়ী গ্রামের কানিপাড়া সুজনের বাড়ী হতে বাবলুর বাড়ী পর্যন্ত সরকারী ভাবে ড্রেণ নির্মান কাজ চলছে। ওই ড্রেন নির্মাণকে কেন্দ করে আনারুলের পরিবারের সাথে আাব্দুল হান্নানের কথা কাটাকাটি হয়। এরই জের ধরে গত ২৪ জুন বেলা ১২ টায় আবারও রেজাউলের স্ত্রী রেহেনা বেগম ও আনারুলের স্ত্রী শান্তনা বেগমের মধে কথা কাটাকাটির একপযায়ে দুই জনের মধে চুলাচুলির ঘটনা ঘটে। আশে পাশের মহিলারা চিৎকার করলে দুই পরাবিারের লোকজন ছুটে এলে তাদের মধে মারপিটের ঘটনা ঘটে। এতে উভয় পক্ষের ৫ জন আহত হয়।

 

এ বাপারে এলাকাবাসীরা জানায়, ডেণ নির্মাণকে কেন্দ্র করে দুই পরিবারের লোকজনের চুলাচুলিসহ মারপিটের ঘটনা ঘটেছে।

এ বিষয়ে ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস সোহেল জানায়, ড্রেণ নির্মাণ করার সময়ে আমি উপস্থিত থাকা অবস্থায় কোনো ঘটনা ঘটেনি। বাড়ী ফিরে আব্দুল হান্নান ও আনারুলের পরিবারের মধে হট্রগোলের কথা শুনেছি।

এ বাপারে রোজাউল ইসলামের লিখিত অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন থানা ডিউটি অফিসার এএসআই রমেন।

No comments

Leave a Reply

two × five =

সর্বশেষ সংবাদ