Menu

সোনাতলায় প্রধানমন্ত্রীর মায়ের নামে প্রতিষ্ঠিত মহিলা কলেজ আজও জাতীয়করণ হয়নি

সোনাতলা সংবাদ ডটকম (বদিউদ-জ্জামান মুকুল, সোনাতলা): নারী শিক্ষা প্রসারে বগুড়ার সোনাতলায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহধর্মীনি ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মায়ের নামে প্রতিষ্ঠিত ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মহিলা ডিগ্রী কলেজ আজও জাতীয়করণ হয়নি। কলেজটি বর্তমান সরকারের শাসনামলেই জাতীয়করণের জোড় দাবি উঠেছে।

 

১৯৯৯ সালে বগুড়া জেলা সদর থেকে প্রায় ৩১ কিলোমিটার উত্তরে সোনাতলা উপজেলার অবস্থান। উপজেলা সদরের অবস্থিত নারী শিক্ষা প্রসারে কলেজটি প্রতিষ্ঠা করেন প্রয়াত সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নান।

 

কলেজটি প্রতিষ্ঠা কালে জমি দিয়ে সহযোগিতা করেন বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান এড. মিনহাদুজ্জামান লীটনের মাতা জাহানারা বেগম। কলেজটি প্রতিষ্ঠার ৫ বছরের মাথায় ২০০৪ সালে বিএনপি-জামায়াত কলেজটিতে অগ্নিসংযোগ, ভাংচুর ও লুটপাট করে মাটির সাথে মিশে দেয়।

 

এছাড়াও কলেজে ভর্তিকৃত ছাত্রীদের মূল্যবান কাগজপত্র সহ আসবাবপত্র আগুন দিয়ে পুড়ে দেওয়ার পাশাপাশি লুটপাট করে নিয়ে যায়। এরপর ২০০৮ সালে বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতা গ্রহণের পর কলেজটি আবারও হাঁটি হাঁটি পা পা করে আবারও সামনের দিকে এগুতে থাকে। এরই এক পর্যায়ে কলেজটি এমপিওভুক্ত হয়। নির্মাণ করা হয় বেশ কয়েকটি বহুতল ভবন।

 

এলাকার গন্যমান্য, শিক্ষানুরাগী ও সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ মনে করেন, বর্তমান সরকার শিক্ষা সহায়ক সরকার। এই সরকারের শাসনামলেই কলেজটি জাতীয়করণ করে এলাকায় নারী শিক্ষার প্রসার ঘটাতে হবে।

 

এ বিষয়ে সোনাতলা সরকারী নাজির আকতার কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর আব্দুল জলিল মিয়া, সোনাতলা উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও সৈয়দ আহম্মদ কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ আলহাজ্ব নজবুল হক, সোনাতলা নাজির আকতার কলেজের সাবেক উপাধ্যক্ষ প্রফেসর রফিকুল ইসলাম বকুল জানান, এক সময় সোনাতলা এলাকার মেয়েদের উচ্চ শিক্ষার জন্য জেলা সদরে গিয়ে লেখাপড়া করতে হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর মায়ের নামে কলেজটি প্রতিষ্ঠিত হওয়ায় এখন এই এলাকার মেয়েরা এখন বাড়ি থেকে পানি পান্তা খেয়ে উচ্চ শিক্ষার সুযোগ পাচ্ছে।

 

এ বিষয়ে সোনাতলা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মহিলা কলেজের ইতিহাস বিভাগের বিভাগীয় প্রধান রেজাউল করিম রেজা জানান, সম্প্রতি বঙ্গবন্ধু পরিবারের নামে দেশের ১৫টি কলেজ জাতীয়করণের ঘোষনা এলেও সেই তালিকায় তাদের কলেজের নাম নেই। অথচ কলেজটি বঙ্গবন্ধু ট্রাস্টভুক্ত একটি প্রতিষ্ঠান।

 

এ বিষয়ে অত্র কলেজের অধ্যক্ষ এড. মিনহাদুজ্জামান লীটন জানান, নারী শিক্ষার হার বৃদ্ধি ও নারীদের উচ্চ শিক্ষার পদ সুগম করতে বর্তমান সরকারের শাসনামলেই কলেজটি জাতীকরণ করা হোক।

No comments

Leave a Reply

1 × 3 =

সর্বশেষ সংবাদ