Menu

সোনাতলায় বন্যার পানি কমার সাথে সাথে যমুনার ভয়াবহ ভাঙনঃ শতাধিক বাড়িঘর হুমকির মুখে

সোনাতলা সংবাদ ডটকম (বদিউদ-জ্জামান মুকুল সোনাতলা): বগুড়ার সোনাতলায় যমুনা নদীতে পানি কমার সাথে সাথে নদীভাঙন তীব্র আকার ধারন করেছে। ইতিমধ্যেই দুই শতাধিক বাড়িঘর অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে গেছে। হুমকির মুখে রয়েছে আরও প্রায় শতাধিক বাড়িঘর।
বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার তেকানীচুকাইনগর ইউনিয়নের খাবুলিয়া, আউচারপাড়া, মহব্বতেরপাড়া, সরলিয়া, জন্তিয়ারপাড়া, মহেশপাড়া এলাকার প্রায় দুই শতাধিক বাড়িঘর যমুনা নদীর অব্যাহত ভাঙনে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে গেছে। গতকাল শুক্রবার সরজমিনে ওই এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, নদী ভাঙনের কারণে ওই এলাকার দুই শতাধিক মানুষ উপজেলার অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছে। এমনকি পার্শ্ববর্তী সাঘাটা ও শিবগঞ্জ উপজেলায় গিয়ে স্থায়ী ভাবে বসবাস শুরু করে দিয়েছে।
অপরদিকে আউচারপাড়া ও খাবুলিয়া এলাকায় আরও প্রায় শতাধিক বাড়িঘর নদীর তীরবর্তী এসে দাঁড়িয়েছে।
ওই এলাকার বাসিন্দা শামছুল আলম (৭০), ইয়াকুব আলী (৯০), লোকমান মিয়া (৬৫), জরিনা বেওয়া (৯৫) জানান, প্রতিবছর বন্যার পর নদীভাঙন তীব্র আকার ধারন করে। এবার নদীভাঙনের কারণে বহুলোক এলাকা ছাড়া হয়েছে। আমাদের বাড়িঘরও নদীর তীরবর্তী এসে দাঁড়িয়েছে। দিনের বেলা ছেলে মেয়েকে নিয়ে কোন রকমে কাটলেও রাতে ঘরে মন বসে না। কখন যেন নদীগর্ভে বসতবাড়ি হারিয়ে যায়। সেই সাথে জীবন প্রদীপ নিভে যায়।
এ বিষয়ে তেকানীচুকাইনগর ইউপি চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ শামছুল হক জানান, নদীভাঙন প্রকৃতির লীলা খেলা। রাক্ষুসী যমুনা নদীগর্ভে প্রতিবছর এই এলাকার লোকজনের বাড়িঘর, গাছপালা ও ফসলী জমি হারাতে হয়।
এ বিষয়ে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ জিয়াউর রহমান জানান, বন্যা শুরু থেকে এখন পর্যন্ত বন্যার্তদের মাঝে ত্রান সামগ্রী বিতরণ অব্যাহত রয়েছে। নদীভাঙন রোধ তাদের বিষয় নয়। এটা পানি উন্নয়ন বোর্ডের ব্যাপার।

No comments

Leave a Reply

4 × three =

সর্বশেষ সংবাদ