Menu

সোনাতলায় রাস্তার মাঝখানে বাঁশের খুঁটিঃ যান চলাচলে প্রতিবন্ধকতা

বদিউদ-জ্জামান মুকুলঃ বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার হরিখালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত প্রায় ৭শ ফুট রাস্তায় বাঁশের খুুঁটি পুতিয়ে রাখা হয়েছে। এতে করে পথচারী ও যানবাহন চলাচলে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হয়েছে। এমনকি রাতের অন্ধকারে ওই খুঁটিগুলির সাথে ধাক্কা লেগে দূর্ঘটনার স্বীকার হতে হচ্ছে পথচারীদেরকে।

 

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বগুড়ার সোনাতলা উপজেলা সদর থেকে প্রায় ৬/৭ কিলোমিটার পূর্বে অবস্থিত হরিখালী হাট। সেখানে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়, একটি উচ্চ বিদ্যালয়, একটি কারিগরি স্কুল অ্যান্ড কলেজ, দুইটি কেজি স্কুল, একটি খাদ্য গুদাম ও অসংখ্য এনজিও ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। সম্প্রতি হরিখালী হাট ও আশ পাশের সরকারী জায়গা জমি বেদখল হয়ে গেছে। এমনকি হরিখালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মোড় থেকে হরিখালী খাদ্য গুদাম ও সিএনজি স্ট্যান্ড পর্যন্ত রাস্তার দু’পাশে অবৈধ দখলকারীরা সরকারী জায়গা দখল করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছে। এতে করে ওই এলাকার প্রায় ৭শ’ ফুট রাস্তা সংকুচিত হয়ে গেছে। ফলে সামান্য বৃষ্টিতে ওই রাস্তায় হাঁটু পানি জমে যায়।

সড়ক ও জনপদ বিভাগ প্রায় ৪১ কোটি টাকা ব্যয়ে মোকামতলা-সোনাতলা ভায়া হরিখালী হয়ে হাটশেরপুর পর্যন্ত ৩৯ কিলোমিটার সড়ক কার্পেটিং করণের কাজ শুরু করলেও জায়গা জমি জটিলতায় হরিখালী প্রাথমিক বিদ্যালয় মোড় থেকে খাদ্য গুদাম (সিএনজি স্ট্যান্ড) পর্যন্ত রাস্তাটি কার্পেটিং করা সম্ভব হয়নি।

 

এ বিষয়ে সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আশরাফু জামান জানান, অবৈধ দখলকারীদের কারণে সংশ্লিষ্ট স্থানে দীর্ঘদিনেও রাস্তা করা সম্ভব হয়নি।

 

এ বিষয়ে স্থানীয় একজন ব্যবসায়ী জানান, তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রাস্তার যে জমি ছিল তা ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

 

এ বিষয়ে স্থানীয় মধুপুর ইউপি চেয়ারম্যান অসীম কুমার জৈন নতুন জানান, স্থানীয় একটি প্রভাবশালী মহল রাস্তার দক্ষিণ পাশে অবৈধ ভাবে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন। বারবার অনুরোধ করেও ফল হয়নি। ফলে স্থানীয় লোকজন রাস্তার মধ্যে বাঁশের খুঁটি স্থাপন করেছে।

 

এ বিষয়ে সোনাতলা থানার ওসি রেজাউল করিম রেজা জানান, একাধিকবার অবৈধ স্থাপনকারীদের সরকারী জায়গা ছেড়ে দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে।
এ বিষয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) কাবেরী জালাল জানান, সংশ্লিষ্ট স্থানে সরকারী রাস্তা প্রস্থ ২৬ ফিট। বর্তমানে সেখানে রয়েছে ১৪/১৬ ফিট। অবশিষ্ট জায়গা অবৈধ দখলকারীদের দখলে।

 

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া আফরিনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ইতিমধ্যেই অবৈধ দখলকারীদের উচ্ছেদের জন্য নোটিশ দেওয়া হয়েছে। স্বেচ্ছায় তারা তাদের স্থাপনা অপসারণ না করলে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে তা গুড়িয়ে দেওয়া হবে।

No comments

Leave a Reply

16 − eleven =

সর্বশেষ সংবাদ