Menu

সোনাতলায় স্বামীর শরীরে প্রতিস্থাপন করা হলো স্ত্রীর লিভার!

সোনাতলা সংবাদ ডটকম (বদিউদ-জ্জামান মুকুল, সোনাতলা): মন দেয়া নেয়া থেকে ভালোবাসার বন্ধনে আবদ্ধ হয় বুলবুল ও নুপুর। এরপর তাদের বিয়ে। জন্ম নেয় ওদের ঘরে নূর ও ইলা। কঠিন ব্যাধিতে আক্রান্ত হয় প্রেমিক স্বামী বুলবুল। তার লিভার সম্পূর্ণ অকেজো হয়ে মৃত্যুর পথযাত্রী হয়ে পড়ে। চিকিৎসক তাকে লিভার পরিবর্তনের পরামর্শ দেয়। স্বামীকে ছাতা হিসেবে মাথা উপর দেখতে নিজের জীবনের ঝুঁকি নেয় নুপুর। অবশেষে তার লিভার স্থাপন করা হয় স্বামীর শরীরে।

বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার দিগদাইড় ইউনিয়নের মাদারীপাড়া গ্রামের মৃত ইয়াছিন আলী তরফদারের একমাত্র পুত্র জামিলুর রহমান বুলবুলের সাথে ১২/১৩ বছর পূর্বে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে একই এলাকার কাতলাহার গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুল মজিদের কন্যা মাকছুদা জাহান নুপুরের। তাদের দু’জনের বিয়ের মধ্যে দিয়ে প্রেমের ইতি টানা হয়। বিয়ে বছর খানেক পরে তাদের ঘরে জন্ম নেয় জাইমা রহমান ইলা (১১)। এর বছর দু’য়েক পরে তাদের আর্বিভাব ঘটে নাবিল রহমান নূরের। স্বামী-স্ত্রীর দাম্পত্য জীবন সুখের কাটছিল। এরই মধ্যে এক কঠিন ব্যাধিতে আক্রান্ত হয় জামিলুর রহমান বুলবুল। কয়েকবার পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের চেন্নাই এপোলো হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য যান তিনি। চিকিৎসক তাকে দ্রুত লিভার পরিবর্তনের পরামর্শ দেন।

বাবা-মা হারা প্রেমিক স্বামীকে এই সুন্দর পৃথিবীর আলো বাতাসে বেঁচে রাখতে নিজের লিভার স্বামীর শরীরে প্রতিস্থাপনের সিদ্ধান্ত নেয় ওই গৃহবধু নুপুর।

এরপর প্রায় ৩০ লাখ টাকা ব্যয়ে গতকাল রোববার ভারতের চেন্নাই এপোলো হাসপাতালে স্ত্রীর শরীর থেকে লিভার নিয়ে স্বামীর শরীরে প্রতিস্থাপন করা হয়। এই লিভার প্রতিস্থাপন করতে প্রায় ১৮ ঘন্টা সময় লেগেছে বলে তাদের পরিবার সূত্রে জানা গেছে।

No comments

Leave a Reply

eighteen + 19 =

সর্বশেষ সংবাদ